গ্রামে বসেই প্রযুক্তি সেবা প্রতিষ্ঠান
বাধা, প্রতিবন্ধকতা, কটুক্তি ছিল কিন্তু ধৈর্যহারা হইনি: আরাফাত রহমান

0

গ্রামে বসেও যে চমক লাগানো কিছু করা যায় তা দেখিয়ে দিয়েছেন ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার বিরুনিয়া ইউনিয়নের আরাফাত রহমান। যেখানে যাতায়াতের ব্যবস্থাই খুব একটা ভালো না সেখানে ইন্টারনেটের সামান্য সুবিধাকে কাজে লাগিয়ে তিনি গড়ে তুলেছেন ‘ময়মনসিংহসোর্স ডটকম’ নামের ছোট এক প্রযুক্তি সেবা প্রতিষ্ঠান।

তরুণ উদ্যোক্তা ‘ময়মনসিংহসোর্স ডটকম’ এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরাফাত রহমানের সঙ্গে বন্ধুদের নিয়ে প্রযুক্তি সেবা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার পেছনের কথা, প্রতিবন্ধকতা, সাফল্য ইত্যাদি নিয়ে মুখোমুখি হয়েছে টেকজুম ডটটিভি। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন সিনিয়র রিপোর্টার মাহাবুব মাসফিক।

টেকজুম ডটটিভি: প্রথমেই আপনার কাছে ‘ময়মনসিংহসোর্স ডটকম’ শুরুর গল্পটা জানতে চাই।
আরাফাত রহমান: হাঁটি হাঁটি পা পা করে বেশ খানিকটা পথ পেরিয়ে এসেছি। বছরও পেরিয়েছি কয়েকটা। ২০১১ সালের প্রথম দিকে ফ্রিল্যান্সিংয়ের মাধ্যমে যে অর্থ উপার্জন করা যায় তা জানতে পারি। সহজভাবে বুঝতে জেনেছি ইন্টারনেটে নানা ধরনের কাজ করে টাকা আয় করা যায়। সেই থেকে উৎসাহ আর সংকল্প করি আমিও এ কাজ করব। কিন্তু তখনও এসব কাজের জন্য কি কি লাগে জানি না। তাই শুরু করা হয়নি তখনও। মনের লালিত স্বপ্ন নিয়ে ২০১২ সালের ১৩ জুলাই দৈনিক হাজারিকা প্রতিদিন পত্রিকার ময়মনসিংহ জেলা প্রতিনিধি শেখ আজমল হুদা মাদানী ভাইয়ের সাথে পরিচয় হয় এবং তার কাছ থেকে ওয়েবসাইট সম্পর্কে মোটামুটি ভালোভাবে জানলাম ও ওয়েব ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট শিখতে আগ্রহ হলাম আর অপেক্ষা করতে থাকলাম আমার দাখিল পরীক্ষার জন্য। ২০১৩ সালে দাখিল ফাইনাল পরীক্ষার পর আজমল ভাই ময়মনসিংহে তাঁর এক বন্ধুর কাছে আমাকে পাঠাল, যার কাছ থেকে আল-হেরা মাল্টিমিডিয়ার ৪(চার) জিবির মত ওয়েব ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট বিষয়ক টিউটোরিয়াল পেলাম এবং কয়েক দিনের মধ্যে একটা ল্যাপটপ কিনে কাজ শিখতে থাকলাম। আজমল ভাইয়ের বন্ধু ময়মনসিংহের শরিফুল ইসলাম ভাই বলেছিলেন একটা টিম নিয়ে কাজ করতে তাহলে কাজতা সহজ হবে। আমার পার্টনার জিহাদুর রহমান তখন ৯ম শ্রেণীর ছাত্র তবে তাঁর ইন্টারনেট সম্পর্কে ভাল জ্ঞান ছিল, তখনকার সময় সে প্রযুক্তি বিষয়ক ব্লগ গুলোতে লেখালেখি করত এবং মোটামুটি জনপ্রিয় লেখক ছিল।

টেকজুম ডটটিভি: গ্রামে বসে প্রযুক্তি সেবা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার স্বপ্ন এবং তা এগিয়ে নেওয়ার অনুপ্রেরণা কোথা থেকে পেলেন?
আরাফাত রহমান: আমার প্রথম অনুপ্রেরণার উৎস শেখ আজমল হুদা মাদানী ভাই এবং ময়মনসিংহের শরিফুল ইসলাম ভাই। শরিফুল ইসলাম ভাই আমাকে বলেছিলেন, যে নয় বছরে পারে না সে নব্বইয়েও পারে না। তাই এখন থেকেই কিছু একটা করার চেষ্টা করো-ইনশাআল্লাহ্‌ তুমিই পারবে। তাদের উৎসাহ আর অনুপ্রেনণা আমাকে কাজ করতে করতে এগিয়ে যাওয়ার অনুপ্রেরণা যোগায়।

টেকজুম ডটটিভি: একজন তরুণ উদ্যোক্তা হয়ে ওঠার পেছনে আপনার পরিবার কেমন সহায়তা করেছে?
আরাফাত রহমান: আমার বাবা কাজের সুবাদে দেশের বাইরে থাকেন। আমার এই এগিয়ে যাওয়ার পিছনে সবচেয়ে বড় অবধান হল আমার মায়ের। আমার মা আমার ভাল কাজ গুলোকে সবসময় সমর্থন দেন। তবে একটা কথা উল্লেখ করতে চাই, আমার পরিবারে আমার মা আমার কাজে সব সময় সমর্থন জানালেও আমার প্রতিবেশীরা এটাকে বিপরীত ভাবে ভাবতো, তাদের ধারণা যে ইন্টারনেট চালাবে সেই ধ্বংস হয়ে যাবে। ভালো ছেলেরা কোনো সময় ইন্টারনেট চালায় না। আমি তখন মনে মনে হাসতাম আর কাজ করে যেতাম। তাছাড়া আমার পার্টনাররা খুবই পরিশ্রমী, ময়মনসিংহসোর্স উন্নয়নে বিশেষ অবদান রয়েছে জিহাদুর রহমানের। তাছাড়া আমি মনে করি, ইন্টারনেটের প্রতি আমার থেকেও তাঁর ভালোবাসাটা একটু বেশীই।
টেকজুম ডটটিভি: প্রযুক্তি সেবা প্রতিষ্ঠান গড়তে তরুণ উদ্যোক্তা হিসাবে কিধরনের প্রতিবন্ধকতা মোকাবেলা করেছেন?
আরাফাত রহমান: কাজে অবশ্যই প্রতিবন্ধকতা আসবে। তাই বলে থেমে যাওয়া ঠিক নয়। এসব কাজ করতে গেলে অবশ্যই ধৈর্য প্রয়োজন। আমি যখন কাজ শুরু করি তখন ইন্টারনেট স্পিড খুব কম ছিল। আবার অনেক সময় ইন্টারনেট থাকত না। কিন্তু তারপরও ধৈর্যহারা হইনি। প্রয়োজনীয় কাজ এগিয়ে নিয়েছি।

'ময়মনসিংহসোর্স ডটকম'-techzoom.tv

টেকজুম ডটটিভি: ‘ময়মনসিংহসোর্স ডটকম’ এর বর্তমান অবস্থা এবং সাফল্য সম্পর্কে কিছু বলুন।
আরাফাত রহমান: ‘ময়মনসিংহসোর্স ডটকম’ এর বর্তমান অবস্থা বলতে গেলে সফলতার পথেই আছি-আল-হামদুলিল্লাহ। আমরা দৈনিক পত্রিকা, অনলাইন পত্রিকা, অনলাইন টিভি, সরকার নির্দেশিত শিক্ষা প্রতিস্থানের ওয়েবসাইট, ই-কমার্স সাইট, ব্লগসহ নানান প্রকার প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট নিয়মিত তৈরি করে যাচ্ছি। এই পর্যন্ত প্রায় ১০০ ওয়েবসাইট তৈরি করেছি। এরই মধ্যে ময়মনসিংহ শহরে একটি অফিস নেওয়া হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটিতে এখন ৫জন কাজ করলেও শিগগিরই আরও লোকবল নিয়োগ করা হবে।

টেকজুম ডটটিভি: ‘ময়মনসিংহসোর্স ডটকম’ থেকে কি কি সেবা দিয়ে থাকেন?
আরাফাত রহমান: ওয়েবসাইট সংক্রান্ত বেশ কিছু সেবা দেয় ‘ময়মনসিংহসোর্স ডটকম’। এসব সেবার মধ্যে ডোমেইন নিবন্ধন, ডোমেইন মালিকানা পরিবর্তন, ডোমেইন রিসেলার, ওয়েব হোস্টিং, ওয়েবসাইট ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট, বাল্ক এসএমএস, ই-মেইল মার্কেটিং, সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (এসইএ)। আর আমাদের সেবা আরো বাড়ানো হয়েছে। হাসপাতাল ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার, বাল্ক এসএমএস রিসেলার।

যোগাযোগের ঠিকানা-www.mymensinghsource.com, মুন মহল (৩য় তলা), ৩১/ক/২, নতুন পল্লী (সানকিপাড়া রোড), ময়মনসিংহ– ২২০০।

টেকজুম ডটটিভি: প্রতিষ্ঠানের প্রচার প্রচারণা কাজে আপনি কি কি করছেন?
আরাফাত রহমান: প্রচারণার প্রধান ক্ষেত্র হিসেবে ফেসবুককেই বেছে নিয়েছি কেননা আমাদের দেশের বেশীর ভাগ ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ফেসবুকে একটিভ থাকে। তাছাড়া বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ব্যানার এড, বিভিন্ন প্রযুক্তি বিষয়ক ব্লগে লেখা-লেখি এবং আমাদের পুরাতন ক্লায়েন্ট দ্বারায় বেশীর ভাগ নতুন ক্লায়েন্ট আসে। আমাদের পরিচিতিটা মূলত ব্লগে লেখালেখিতেই বেশী হয়েছে। আমি ও আমাদের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও জিহাদুর রহমান নয়ন পূর্বে নিয়মিত বাংলা ব্লগ গুলোতে লেখালেখি করতাম।

টেকজুম ডটটিভি: ‘ময়মনসিংহসোর্স ডটকম’ নিয়ে আপনার পরিকল্পনা কি?
আরাফাত রহমান: ২০১৩ সাল থেকে পড়ালেখার এত ঝামেলার মধ্যেও নিয়মিত সেবা দিয়ে আসছি এবং প্রতিনিয়ত এগুলো বৃদ্ধি করার চেষ্টা করছি। বর্তমান সেবা গুলোর সাথে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন সেবা যোগ করছি এবং আগামীতে ময়মনসিংহসোর্সকে একটি উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান হিসেবে দাঁড় করাতে চাই-ইনশাআল্লাহ। বর্তমানে এখানে নিজেকে সহ ৬ জন লোকের কর্মসংস্থানের সোযোগ করতে পেরেছি। ভবিষ্যতে এটাকে আরো বৃদ্ধির পরিকল্পনা আছে। ভবিষ্যতে প্রতিষ্ঠানটিকে দেশের শীর্ষস্থানীয় ওয়েব ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানে পরিনত করতে চাই।

টেকজুম ডটটিভি: আপনার মতো উদ্যোক্ত হিসাবে যারা নতুন আসতে চান তাদেরকে আপনার পরামর্শ?
আরাফাত রহমান: ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট একটি সৃজনশীল কাজ। তাই এটি করতে গেলে অবশ্যই মেধা, ধৈর্য্য ও সততার প্রয়োজন। ভালো মানের ডেভেলপার হতে গেলে অবশ্যই কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। তবে হঠাৎ সাফল্য লাভের চিন্তা না করাই ভালো।

টেকজুম ডটটিভি: টেকজুম ডটটিভি’কে সময় দেয়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।
আরাফাত রহমান: ব্যস্ততার মাঝেও আমার প্রতিষ্ঠানের এবং আমার কথা শোনার জন্য টেকজুম ডটটিভি’কে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন