স্মার্টফোনের চার্জ সমস্যার সমাধান দিবে আইটেল-এর ‘পি ১১’

0
তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিবেদক, টেকজুম ডটটিভি// এই স্মার্টফোনের যুগে সব তথ্য থেকে শুরু করে যাবতীয় ডকুমেন্ট রাখার জন্য স্মার্টফোনকেই বেছে নেয়া হয়। কিন্তু সেই ফোনের দাম যদি বেশি হয়। তা অনেকের কেনার সামর্থ থাকে না। আবার স্মার্টফোন ব্যবহার করেছেন চার্জের সমস্যায় পড়েন নাই এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যায়না ।  চার্জের সমস্যা সমাধানে এবং এই কনফিগারেশনের বাজার মুল্যের কথা চিন্তা করলে আপনি অনায়াসে নিতে পারেন আইটেলের ‘পি ১১’  স্মার্টফোনটি।
ফোনটির বিশেষত্ব হলো একজন ব্যবহারকারী টানা ৫৫ ঘন্টা পর্যন্ত ২জি এবং ৩৪ ঘন্টা পর্যন্ত ৩জি নেটওয়ার্ক এর আওতাধীন থেকে কথা বলতে পারবেন। এছাড়াও স্মার্টফোন ব্যবহারকারী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দশ ঘন্টা পর্যন্ত একনাগাদে সক্রিয় থাকতে পারবেন এবং ১৫ ঘন্টা পর্যন্ত ভিডিও দেখতে পারবেন।
ফোনটির আদ্যোপান্ত নিয়ে আজ কথা বলবো আমরা। টেকজুমের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো;
ডিসপ্লেঃ
বাজেট ফোনে আইটেলের নতুন এ ফোনটিতে বডি প্লাস্টিক ও অ্যালয় কাভার রয়েছে। যা খুব শক্ত। রয়েছে ৫ ইঞ্চির ডিসপ্লে। যার শার্পনেসও অনেক।
ডিজাইনঃ
এটির নকশায়ও আর দশটি ফোনের থেকে পরিবর্তন আনা হয়েছে । দেখতে যথেষ্ট স্টাইলিশ। সেটটির ডান দিকে পাওয়ার ভলিউম বাটম রয়েছে যা অনেক যা অনেক স্বাচ্ছন্দেই ব্যবহার করা যায়। সেটটির নিচের দিকে হোম বাটন সেন্সর রয়েছে। এছাড়াও আইটেল ব্র্যান্ডের মোবাইলগুলোর পিছন দিকে বড় আকৃতির লোগো আছে।
হার্ডওয়্যারঃ
কম দামের ফোনটির উচ্চগতি নিশ্চিত করতে রয়েছে ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াড কোর প্রসেসর। গেমিং ও স্পষ্ট ভিডিও দেখা যাবে ফোনটি দিয়ে। ফোনটির র‌্যাম ১ জিবি। ইন্টারনাল মেমোরি ৮ জিবি। যা মাইক্রো এসডি কার্ডের মাধ্যমে ৩২ গিগাবাইট পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। ফলে অনেক বেশি ছবি, ভিডিও, ডকুমেন্টস ইত্যাদি সংরক্ষণ করা যাবে।
স্মার্টফোনটিতে এন্ড্রয়েড ৬.০ (মার্শম্যালো) ভার্সনে চলবে। সব মিলিয়ে বাজেট ফোনের ব্যবহারকারীরা হার্ডওয়ারের দিক থেকে অনেকটা সন্তুষ্ট থাকতে পারেন বলে মনে হয়েছে।
ক্যামেরাঃ
ফোনের দাম অনুযয়ি ক্যামেরার উপর ফোকাসও দেওয়া হয়েছে। রিয়ার ক্যামেরায় রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ও ফ্রন্ট ক্যামেরায় ২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা রয়েছে। যা দিয়ে ছবির কাজও সেরে ফেলতে পারবে ব্যবহারকারীরা। তবে ভালো আলো পেলে অনেক পরিষ্কার ছবি উঠবে ‘পি ১১’ তে। আর কম দামের ফোন বলে সেলফি তুলতে পারবেন না তা হবে না। সামনের ২ মেগাপিক্সেল দিয়েও স্মৃতিকে ধরে রাখতে পারবেন।
ব্যাটারিঃ
সবচেয়ে আকর্ষণীয় ও বিশেষ ফিচার হলো ফোনটির ব্যাটারি। এটিতে ৫ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি রয়েছে। যা পাওয়ার ব্যাংক হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। যা দিয়ে একজন ব্যবহারকারী টানা ৫৫ ঘন্টা পর্যন্ত ২জি এবং ৩৪ ঘন্টা পর্যন্ত ৩জি নেটওয়ার্ক এর আওতাধীন থেকে কথা বলতে পারবেন পি ১১ স্মার্টফোনে। পি ১১ স্মার্টফোন ব্যবহারকারী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ১০ ঘন্টা পর্যন্ত একনাগাদে সক্রিয় থাকতে পারবেন এবং ১৫ ঘন্টা পর্যন্ত ভিডিও দেখতে পারবেন।
কানেক্টিটিভিটি ও টুকিটাকিঃ
ফোরটি ২জি ও ৩জি সাপোর্ট করবে। দুটি সিমের একটি মাইক্রো ও ন্যানো সিম ব্যবহার করা যাবে। আর ক্যামেরায় এলএইডি ফ্ল্যাশও রয়েছে। এছাড়াও কানেক্টিটিভিটি ক্ষেত্রে ওয়াই ফাইসহ ইউএসবি ২.০ পোর্ট রয়েছে। ৩.৫ মিলিমিটার জ্যাক, এমপিথ্রি, এমআইডিআই, এএমআর, ডব্লিউএভি, এএসি অডিও প্লেয়ারও আছে।
স্পিকারঃ
লাউডলি ফোনে গান শুনতে যারা পছন্দ করেন। তাদের জন্য উপযুক্ত হবে ‘পি ১১’ সেটটি ।
ওয়ারেন্টিঃ
ফোনটি কিনলে কোম্পনি ১২ মাস পর্যন্ত বিক্রয়োত্তর সেবা দিবে।
মূল্যঃ
বাংলাদেশের বাজারে এই দামে যে স্মার্টফোন আছে তার থেকে অনেক আলাদাই হবে এটি। কারণ এই ফোনের দাম মাত্র ৫ হাজার ২৯০টাকা। এই দামে অত্যাধুনিক ব্যটারিসহ ১জিবি র‌্যামের ফোন বাজরে পাওয়া দুষ্কর।
টেকজুম ডটটিভি/৮অক্টোবর/রোহান
মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন