নিজস্ব প্রতিবেদক, টেকজুম ডটটিভি// দেশে অবৈধ আন্তর্জাতিক কল টার্মিনেশন উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান সুনীল কান্তি বোস।

বিটিআরসির প্রধান সভাকক্ষে বুধবার দুপুরে তার বিদায় উপলক্ষে গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ সব কথা বলেন।

অবৈধ একটি কাজ অনেকগুলো অবৈধ কাজের জন্ম দেয় মন্তব্য করে সুনীল কান্তি বোস বলেন, ‘অনেক প্রতিবন্ধকতার পরও ২০১২ সালের দিকে ৩ থেকে সাড়ে ৩ কোটি মিনিট কল ছিল। এর পর থেকে বিটিআরসির নিবিড় পরিচর্চায় তা বাড়তে থাকে। বর্তমানে দেশে আন্তর্জাতিক কল টার্মিনেশন উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে।

তিনি বলেন, ‘আমি সব মিলিয়ে ভালভাবে কাজ করতে পেরেছি। কাজ করতে গেলে প্রতিবন্ধকতা থাকবেই। ওই প্রতিবন্ধকতা শুধু মন্ত্রণালয় থেকেই নয়, অনেক স্থান থেকেই আসে। সব প্রতিবন্ধকতা মোকাবেলা করে কাজ করতে হয়।

তিন আরও বলেন, ‘বিটিআরসির উচিত সরকারের কাছে কোনোকিছু না লুকানো। আর সরকারেরও উচিত বিটিআরসি কীভাবে চলবে তা নির্ধারণ করা। বাংলাদেশে যদি টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন না হতো তাহলে টেলিযোগাযোগের এত উন্নতি হতো না।

কল ড্রপ বিষয়ে চেয়ারম্যান বলেন, ‘কল ড্রপ শুধু বাংলাদেশের সমস্যা নয়। কল ড্রপের সমস্যা বাংলাদেশের চেয়ে পার্শ্ববর্তী দেশে বেশি হচ্ছে। বিভিন্ন অপারেটরের সঙ্গে এ বিষয় নিয়ে বিটিআরসি আলোচনা করেছে। অপারেটররা কল ড্রপের ক্ষতিপূরণ দিতে সম্মত হয়েছে। কল ড্রপ একেবারে চলে যাবে না, তবে ন্যূনতম করার চেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে।

‘২০১৬ সালের মধ্যে ফোরজি দেশে আসবে’ বলেও জানান তিনি।

বিটিআরসি সচিব মো. সরওয়ার আলমের সঞ্চালনায় বিটিআরসি’র ভাইস চেয়ারম্যান বি. জে. আহসান হাবিব খান, কমিশনার এ টি এম মনিরুল আলম, মো. জহিরুল হকসহ অন্যান্য পরিচালকরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

অবৈধ ভিওআইপিসহ টেলিটকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ প্রসঙ্গে চেয়ারম্যান বলেন, ‘টেলিটক যেভাবে চলছে তা মেনে নেওয়া যায় না। টেলিটকের ব্যাপারে যে ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, অন্য কোনো অপারেটরের বিরুদ্ধে এ ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।’

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন