নজর রাখুন আপনার শিশুদের ইন্টারনেট ব্যবহারে

0

আধুনিক জীবনযাপনের এ অপরিহার্য অংশ হয়ে দারিয়েছে ইন্টারনেট।বিশ্বজুড়ে এই প্রযুক্তি ব্যবহারে পিছিয়ে নেই শিশুরাও। কেবল ঘরে নয়, বাইরে চলাফেরার সময়ও তারা মুঠোফোনের মাধ্যমে বিচরণ করছে ইন্টারনেটের সীমাহীন জগতে। এতে তাদের মা-বাবা বা অভিভাবকেরা নতুন একধরনের সংকটে পড়েছেন।

শিশুদের ইন্টারনেট ব্যবহারের ওপর নজর রাখা উচিত হবে কি না,শিশুরা কী ধরনের ওয়েবসাইট ব্যবহার করছে, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে তারা কী দেখছে এবং কী বলছে? শিশুদের কি মা-বাবার নজরদারি এড়িয়ে স্বাধীনভাবে ইন্টারনেট ব্যবহার উচিত কিনা?

যুক্তরাষ্ট্রের গবেষণা প্রতিষ্ঠান পিউ ইন্টারনেট প্রজেক্ট বলছে, দেশটির ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিশু-কিশোরদের চার ভাগের তিন ভাগই মুঠোফোন ব্যবহার করে। তাদের প্রায় অর্ধেকের মুঠোফোনে ইন্টারনেট, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও ই-মেইল ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে।এবং আরও কম বয়সেও অনেক শিশুর হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে ইন্টারনেট। আর ইন্টারনেটে তাদের গতিবিধির ওপর নজর রাখতে মা-বাবারা ব্যয়বহুল এবং বিনা মূল্যের বেশ কিছু প্রযুক্তি বা অ্যাপও ব্যবহার করেন। ইউনোকিডস, কাস্টোডিও, অ্যাভিজি ফ্যামিলি সেফটি, মামাবিয়ার, ফাইন্ড মাই কিডস ও জিপিএস ট্র্যাকার প্রো প্রভৃতি সুবিধা ব্যবহার করে শিশুদের মুঠোফোনের অবস্থান, তারা কার কার সঙ্গে বার্তা ও ই-মেইল বিনিময় করছে এবং ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রামের মতো সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে কী কী লিখছে বা পোস্ট করছে সেসবের খোঁজ রাখা যায়।

নিউইয়র্কে কর্মরত মনোরোগের চিকিৎসক র্যাশেল ব্লেকম্যান তাঁর ৮ ও ১১ বছর বয়সী দুই মেয়ের মুঠোফোন ব্যবহার এবং অবস্থান জানতে মামাবিয়ার প্রযুক্তি ব্যবহার করেন। এতে করে তিনি মেয়েদের ব্যাপারে অনেক নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন। তাঁর মতে, এতে মেয়েদের স্বাধীনতা মোটেও খর্ব হয়নি, বরং বেড়েছে। কারণ, তারা যেখানে খুশি যেতে পারছে এটা ভেবে যে মা তাদের অবস্থান জানতে পারছেন।
তবে শিশুদের ওপর নজরদারির ব্যাপারটিকে সবাই যে ভালো মনে করেন, তা নয়। কমন সেন্স মিডিয়া নামের একটি প্রতিষ্ঠানের প্রধান ক্যারোলিন নর বলেন, নজরদারির ঝুঁকিপূর্ণ দিকও রয়েছে। শিশুরা ইচ্ছে করলে নজরদারির কাজে ব্যবহৃত প্রযুক্তিগুলোকে ফাঁকি দেওয়ার চেষ্টা করতে পারে। আর তারা নিজেদের মুঠোফোনকে একান্ত ব্যক্তিগত ও পবিত্র জিনিস হিসেবে মনে করলে তাতে নজরদারির ব্যাপারটা নিয়ে মা-বাবার সঙ্গে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়তে পারে।

নিউইয়র্কের সেন্টার ফর কনস্টিটিউশনাল রাইটসের সমন্বয়কারী জেন নেসেল মনে করেন, মা-বাবারা এখন অনেকটাই নিশ্চিত থাকতে পারেন। কারণ, এখনকার যুগে পৃথিবীটা শিশুদের জন্য আদি যুগের চেয়ে অনেক নিরাপদ। শিশুদের স্বাধীনতা দেওয়া উচিত, এমনকি ভুল করার ক্ষেত্রেও।
সিবিএস নিউজ।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন