মাত্র ৯০ মিনিটেই শনাক্ত হবে অপরাধী

0

অত্যাধুনিক ডিএনএ পরীক্ষা করার যন্ত্র দিয়েই মাত্র ৯০ মিনিটের মধ্যে শনাক্ত করা যাবে অপরাধীকে। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের আরিজোনা রাজ্যে পরীক্ষামূলকভাবে র‌্যাপিডএইচআইটি যন্ত্রটি অপরাধী শনাক্ত করতে ব্যবহার করা হচ্ছে।

আশা করা হচ্ছে, অনতিবিলম্বে যুক্তরাষ্ট্রের সবকটি রাজ্যেই এই যন্ত্রটি বসানো হবে।

দেশটির দ্য ডিপার্টমেন্ট অব হোমল্যান্ড সিকিউরিটি, দ্য ডিপার্টমেন্ট অব ডিফেন্স এবং দ্য জাস্টিস ডিপার্টমেন্টে অপরাধীদের শনাক্ত করতে এই যন্ত্রের ব্যবহার করা হবে। এই তিনটি ডিপার্টমেন্টের অর্থ সহায়তাতেই এই অপরাধী শনাক্তকারী যন্ত্র তৈরি করা হয়েছে।

আড়াই লাখ ডলার মূল্যের এই যন্ত্রটি ইতোমধ্যেই চীন, রাশিয়া, অস্ট্রেলিয়াসহ কিছু দেশ ব্যবহার করছে। ব্যবহারকারী দেশগুলোতে আশানুরূপ ফলাফল পাওয়ার পরই যুক্তরাষ্ট্র এই প্রযুক্তিতে আগ্রহী হয়।

সম্ভ্যাব্য অপরাধীর দাত, ঘাড়, ঘাত, সিগারেটের অংশ, কাপড় এবং অন্যান্য জিনিস থেকে নেয়া নমুনা বিশ্লেষণ করেই তবে যন্ত্রটি সম্ভ্যাব্য অপরাধীর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত দেয়। যদি লাল সংকেত দেখা যায় যন্ত্রটিতে তাহলে বোঝা যায় পরীক্ষিত ব্যাক্তিটি অপরাধী। আর যদি সবুজ সংকেত দেখা যায়, তাহলে বুঝতে হবে ব্যাক্তিটি নির্দোষ।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের ইলেকট্রনিক ফ্রন্টিয়ার ফাউন্ডেশনের কর্মচারী জেনিফার লিঞ্চ বলেন, “যন্ত্র যদি কোনো সময় বিকল হয়ে যায় তখন কি করা হবে তা এখনই ভেবে রাখা উচিত। আমরা এমন কিছু কেস পেয়েছি যাতে দেখেছি অপরাধীদের ঠিকভাবে শনাক্ত করা যাচ্ছে না। অপরাধী নিজের অপরাধ স্বীকার করার পরেও যন্ত্রটি তাকে নির্দোষ বলছিল।”

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন