ঢাকায় অনুষ্ঠিত হল 'ইনোভেশন এক্সট্রিম' ২০১৪

0

(নিজস্ব প্রতিবেদক, টেকজুম ডটটিভি)- বিদেশি বিনিয়োগকারী আর দেশের স্টার্টআপ উদ্যোক্তাদের সমন্বয়ে বছরের সবচেয়ে বড় স্টার্টআপ ইভেন্ট ‘ইনোভেশন এক্সট্রিম’ (আইএক্স) ২০১৪ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার ঢাকার রেডিসন হোটেলে ১০টি স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠান থেকে বিনিয়োগকারী এবং বিচারকদের দৃষ্টিতে সেরা ঘোষণা করা হয়েছে বঙ্গ.কম, জুমজুম.কম এবং দাম.কম.বিডিকে। সম্মেলনের মূল থিম হচ্ছে ‘বাংলাদেশে উদ্ভাবন’ (Innovation in Bangladesh) যেখানে ফুটিয়ে তোলা হয় কিছু তরুণের সাফল্যের গল্প।

বিনিয়োগকারী, অভিজ্ঞ উদ্যোক্তা, কর্পোরেট পেশাদার, স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক মিডিয়াকে একসঙ্গে তুলে আনা এবং বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় উদ্ভাবক এবং উদ্যোক্তাদের সবার কাছে তুলে ধরার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হয় সম্মেলনটি। এতে দেশি বিদেশি স্বনামধন্য বক্তাসহ প্রায় সাড়ে তিনশত মানুষ অংশগ্রহণ করেন বলে আয়োজক সূত্র জানিয়েছে। অনুষ্ঠানটিতে বাংলাদেশের তিনটি শীর্ষ টেক উদ্যোগসহ বাছাইকৃত ১০টি প্রাথমিক পর্যায়ের স্টার্টআপকে তুলে ধরা হয়। ইন্টারনেটের সাথে যুক্ত কমিউনিটির সম্ভাবনাগুলো এবং কীভাবে একটি সীমারেখাবিহীন একটি নতুন পৃথিবী ফুটে ওঠে সবার কাছে তা নিয়েই মূলত বেশি আলোচনা হয়। এছাড়া ছোট ও সম্ভাবনাময় প্রতিষ্ঠানের নানামুখী পদক্ষেপ আর পরিকল্পনার সাথে বিনিয়োগকারী-পরামর্শকদের সম্মিলন ঘটে।

নেপালের কোটিপতি ব্যবসায়ী নির্ভানা চৌধুরী এই ইভেন্টের কীনোট স্পিচ দেন এবং ‘বিলিয়েনিয়ের বেসিক্স’ নামের একটি ওয়ার্কশপ পরিচালনা করেন। ‘কেন এই সময়টা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করার জন্য সেরা সময়’ এই বিষয়ে একটি প্রেজেন্টেশন দেন বোস্টন কনসাল্টিং গ্রুপের এমডি জারিফ মুনির। গ্রামীণফোনের সদ্যপ্রাক্তন সিইও এবং ইউনিনরের বর্তমান সিইও বিবেক সুদ স্টার্টআপ এবং ব্যবসা এর উপর টেলিকমিউনিকেশনের প্রভাব নিয়ে কথা বলেন। স্টার্টআপ ঢাকার প্রতিষ্ঠাতা মুস্তাফিজুর আর খান ইনোভেশন এক্সট্রিমকে একটি অনন্য সাধারণ ইভেন্ট হিসেবে আখ্যায়িত করেন। তিনি বলেন, ‘এ ধরনের ইভেন্ট এর আগে কখনো হয়নি এবং টেকনোলজি নির্ভর ব্যবসা নিয়ে এমন একটি সফল ইভেন্ট আয়োজন করতে পেরে আমরা অনেক খুশি’।

স্টার্টআপ ঢাকার সহ-প্রতিষ্ঠাতা ফায়াজ তাহের প্রিয়.কম-কে বলেন, ‘যেভাবে বাংলাদেশে ব্যবসা হয় তার ধারণাকে পরিবর্তন করতে আমরা এসেছি। সকল উদ্যোক্তাদের একই ছাদের নিচে নিয়ে এসে আমরা সেটা প্রমাণ করে দেখালাম। আইএক্স-এ আমরা সেরা সব উদ্যোগগুলোকে তুলে ধরেছি, নতুন ব্যবসায়ীদেরকে অনুপ্রেরণা প্রদান করেছি এবং সকলের সাথে একটি যোগাযোগ বন্ধন তৈরি করেছি। এই ইভেন্টটি আমাদের জন্য অনেক বড় একটি অর্জন এবং আশা করছি স্টার্টআপ এবং টেক বিজনেস এর জন্য ২০১৫ সাল একটি ভিন্ন রকম বছর হবে’।

অন্যান্য বক্তাদের মধ্যে গোল্ডেন গেট ভেঞ্চার(ভিসি), ফেনক্স (ভিসি), বোস্টন কনসাল্টিং গ্রুপ, জালোরা (মালয়েশিয়ার ফ্যাশন ই-কমার্স সাইট), মাস্টারকার্ড, ইনভেস্টটুইনোভেট(এক্সেলারেটর), ইন্টারন্যাশনাল ফাইনান্স কর্পোরেশন (আইএফসি), এলিওয়াচ (এনওয়াইসি এর মিডিয়া পার্টনার), জাগো অনলাইন স্কুল, অগমেডিক্স, সোলারিক, পায়জা, বিকাশ, ম্যাগনিটো ডিজিটাল, লাইটক্যাসেল পার্টনার্স, জেমরক এবং বাংলাদেশ ইয়ুথ লিডারশিপ সেন্টারসহ বিভিন্ন স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, ‘ইনোভেশন এক্সট্রিম’ বা আইএক্স-২০১৪ এর প্রধান বিষয় ছিল ‘ইনোভেশন ইন বাংলাদেশ’, দেশের সম্ভাবনা এবং সফল গল্পগুলোকে তুলে ধরা। ইভেন্টে ১০টি স্টার্টআপসহ (বিপনি, বঙ্গ, বাকেট ইঞ্জিনিয়ারস, দাম কম, কখন, লিডিয়া মে, লাইটক্যাসেল পার্টনার্স, প্যারালাক্স-লজিক, সবজি-বাজার এবং জুমজুম) বাংলাদেশের ৪টি সফল ব্যবসা উদ্যোগের কথা তুলে ধরা হয়। এই ১০টি স্টার্টআপ, ভেঞ্চার ক্যাপিটালিস্ট এবং বিচারকদের সামনে একটি মক স্টার্টআপ ইনভেস্টমেন্ট পিচিংয়ে অংশ নেয় এবং এই স্টার্ট আপগুলো বিজয়ী হয় বঙ্গ.কম, জুমজুম.কম এবং দাম.কম.বিডি।

অনুষ্ঠানটিতে টাইটেল স্পন্সর হিসেবে গ্রামীণফোন এবং গোল্ড স্পন্সর হিসেবে ইএমকে সেন্টার এই ইভেন্টের প্রধান স্পন্সর ছিল। ফরচুনা বাংলাদেশ, আইপিডিসি, এরিকসন, ডিআইআরডি গ্রুপ এবং পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্স গিফট স্পন্সর ছিল। পার্টনার হিসেবে ম্যাগনিটো ডিজিটাল, লাইটক্যাসেল পার্টনার্স, ডিইএস, আমেরিকান অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন, প্রিনিউরল্যাব, জিএন্ডআর, বেসিস এবং ইনকোগমিটো ছিল। লোকাল মিডিয়া পার্টনার হিসেবে ডেইলি স্টার ও রেডিও ফুর্তি এবং ৬টি আন্তর্জাতিক পার্টনারের মধ্যে ই২৭, ইনোভেশন ইজ এভরিওয়ের, এলি ওয়াচ, বামইয়ান মিডিয়া, টেকজুস এবং ইয়োর স্টোরি ছিল।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন