শাহজালাল রোহান, টেকজুম ডটটিভি// দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারি ও সেলফি তোলার জন্য বাংলাদেশীদের জন্য উপযুক্ত প্রিমিয়াম স্মার্টফোন এনেছে ট্রানশান হোল্ডিংস লিমিটেড।  ফোনটির মডেল ‘টেকনো আই সেভেন’ । ফোনটির বিশেষত্ব হলো কম আলোতেও ঝকঝকে সেলফি তুলতে সক্ষম এবং এটিতে অ্যান্টি ওয়েল সেন্সর ব্যবহার করা হয়েছে যা দিয়ে তৈলাক্ত আঙ্গুল দিয়েই দ্রুত আনলক  করা যায়। ধাতব বডির এই স্মার্টফোনটি নকশায়ও এনেছে অনেক পরিবর্তন। ৪ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি ফোনটিকে রকেট চার্জিং মডেলের সেটও বলা হয়। কারণ এই প্রযুক্তিতে চার্জ দিলে নরমাল প্রক্রিয়ার চেয়ে ২০ শতাংশ দ্রত চার্জ হয়। যা পরিক্ষিত।

অ্যান্ড্রয়েড নুগাট (৭.১) অপারেটিং সিস্টেমচালিত স্মার্টফোনটির আরো চমক হচ্ছে সামনেই রয়েছে ১৬ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা ও সেলফি স্ক্রিণ ফ্ল্যাশ ফিচার। যা ছবি তোলার সময় এর এলইডি ফ্ল্যাশের সঙ্গে মোবাইলটির স্ক্রিণের আলোকেও ফ্ল্যাশ হিসেবে ব্যবহার করা যাবে।

ফোনটির আদ্যোপান্ত নিয়ে আজ কথা বলবো আমরা। টেকজুমের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো;

ডিসপ্লেঃ

টেকনো আই সেভেন স্মার্টফোনটিতে ৫.৫ ইি সম্পূর্ণ এইচডি আইপিএস ডিসপ্লে। যার রেজুলেশন ১০৮০ বাই১৯২০ পিক্সেল।

ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর:
টেকনো আই সেভেন এর বিশেষ ফিচার হচ্ছে এর ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর। ফোনটিতে অ্যান্টি ওয়েল সেন্সর ব্যবহার করা হয়েছে যা দিয়ে তৈলাক্ত আঙ্গুল দিয়েই দ্রুত আনলক করা যায়। এই মডেলটি যে দেশেই বাজারজাত করা হয় সেই দেশের আবহাওয়া উপযোগী করেই তৈরি করা হয়।

ডিজাইন:
টেকনো আই সেভেন দেখতে খুবই স্লিম একটি স্মার্টফোন। এটির নকশায়ও অনেক পরিবর্তন আনা হয়েছে । এটি সম্পূর্ণ ধাতব মেটাল দিয়ে তৈরি। দেখতে যথেষ্ট স্টাইলিশ। সেটটির উভয় দিকেই ক্যাপাসিটিভ ব্যাক ও ওভারভিউ বাটম রয়েছে। সেটটির ডান দিকে পাওয়ার ভলিউম বাটম রয়েছে যা অনেক স্বাচ্ছন্দেই ব্যবহার করা যায়। এছাড়াও টেকনো ব্র্যান্ডের মোবাইলগুলোর পিছন দিকে বড় আকৃতির লোগো আছে।

হার্ডওয়্যারঃ

ফোনটিতে সেটটিতে ১.৫ গগিার্হাজ অক্টাকোর প্রসেসর রয়েছে। স্মার্টফোনটি ৪ গিগাবাইট র‌্যাম ব্যবহার করা হয়েছে। ৩২ গিগাবাইট স্টোরেজ তো রয়েছেই চাইলে আরও ১২৮ গিগাবাইট মাইক্রো এসডি কার্ডের মাধ্যমে বড়ানো যাবে। এটিতে মিডিয়াটেক এমটি ৬৫৭০ চিপ সেট ব্যবহৃত হয়েছে। ব্যবহারকারীরা হার্ডওয়ারের দিক থেকে অনেকটা সন্তুষ্ট থাকতে পারেন বলে মনে হয়েছে।

ক্যামেরাঃ

টেকনো আই সেভেনের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ফিচার হলো ক্যামরোয় ব্যবহার করা হয়েছে পিক্সেল এক্স ইমেজ প্রসেসিং টেকনোলজি। যা খুব আকর্ষণীয়। সেটটির সামনে দিকে ১৬ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। যা দিয়ে মৃদু আলোতে স্পষ্ট ছবি তোলা যায়। সেলফি ক্যামরোয় স্ক্রিণ ফ্ল্যাশ সার্পোট থাকায় ছবি তোলার সময় এর এলইডি ফ্ল্যাশের সঙ্গে মোবাইলটির স্ক্রিনের আলোকেও ফ্ল্যাশ হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। ফোনটির রিয়াল ক্যামেরায় ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ও চারকোণা এলইডি ফ্ল্যাশ লাইটও রয়েছে। ক্যামেরার দিক থেকে অনেকটা পারফেক্ট। আর ক্যামেরার আরেকট বিশেষ দিক হলো- বিষয় বস্তুকে সঠিক ভাবে ফুটিয়ে তুলতে পারে।

ব্যাটারিঃ

সেটটিতে ৪ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে। এই ব্যাটারি দ্রুত চার্জ গ্রহণ করতে সক্ষম । ফোনটিকে রকেট চার্জিং মডেলের সেটও বলা হয়। কারণ এই প্রযুক্তিতে চার্জ দিলে নরমাল প্রক্রিয়ার চেয়ে ২০ শতাংশ দ্রত চার্জ হয়। যা পরিক্ষিত। একবার সম্পূর্ণ চার্জ দিলে প্রায় ১০ থেকে ১২ ঘন্টা ব্যবহার করতে পারবেন। হোয়াটঅ্যাপ, টুইটার, ফেসবুকের মতো অ্যাপ্লিকেশন চালালেও আপনি একদিন চালাতে পারবেন। আপনি একটানা ১০ ঘন্টা ৫ মিনিট এইচডি ভিডিও দেখা যাবে সেটটি দিয়ে।

কানেক্টিটিভিটি ও টুকিটাকিঃ

ফোনটিতে ব্লুটুথ, ওয়াইফাই ও জিপিএস সুবিধা রয়েছে। এছাড়াও ডান দিকে একটি ডুয়াল সিম স্লট রয়েছে। সেটটির নীচের দিকে একটি মাইক্রো ইউএসবি পোর্ট ও স্পিকারের নেট রয়েছে। পিছনের ক্যামেরার উপরে ডান কোণে একটি চারকোনা এলইডি ফ্ল্যাশ লাইট ব্যাবহার করা হয়েছে। আর টেকনো ব্র্যান্ডের মোবাইলগুলোর পিছন দিকে বড় আকৃতির লোগো ব্যবহার করা হয়েছে।

ওয়ারেন্টিঃ
টেকনো মোবাইলরে প্রতিটি হ্যান্ডসেট রয়েছে ১৩ মাসের ওয়ারেন্টি ও ১০০ দিনের রিপ্লেসমেন্ট গ্যারান্টি। যা প্রদান করবে ট্রানশান হোল্ডিংস সার্ভিসিং কার্যালয় থেকে।

মূল্যঃ

টেকনো আই সেভেন সেটটির বর্তমান বাজার মূল্য ১৯ হাজার ৯৯০ টাকা। যা চারটি রঙে পাওয়া যাবে।

টেকজুম ডটটিভি/২৮আস্ট/এসআর/এমআইজে

 

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন