তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিবেদক, টেকজুম ডটটিভি// মালয়শিয়ার’র শীর্ষস্থানীয় আন্তর্জাতিক সহায়তা সংস্থা, মারসি মালয়েশিয়া বাংলাদেশের বন্যাদুর্গত মানুষদের সাহায্যার্থে দুই সপ্তাহব্যাপী কার্যক্রম সম্পন্ন করেছে। ঢাকা কমিউনিটি হাসপাতালের সমন্বয়ে মারসি মালয়শিয়া সুনামগঞ্জ, মাওয়া ও সিরাজগঞ্জ অ লে ৮ হাজার ৬শ ব্যক্তির মধ্যে বিনামূল্যে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা, পানি বিশুদ্ধকরই ট্যাবলেট এবং সাধারণ ওষুধপত্র সরবরাহ করেছে।

মারসি মালয়শিয়া এবং ঢাকা কমিউনিটি হাসপাতাল বাংলাদেশ দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের সাথে একযোগে ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনা করেছে। এসব কার্যক্রম পরিচালনার জন্য উপযুক্ত অ ল নির্বাচনে থানা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের কাছ থেকেও পরামর্শ নেয়া হয়েছে। প্রতিটি এলাকায়, চারটি করে মেডিকেল ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছিল; প্রতিটি পরিবারকে তিনটি করে পানি বিশুদ্ধকরণ উপকরন প্রদান করা হয় যা ৩০ লিটার পানি বিশুদ্ধ করার জন্য যথেষ্ট। প্রত্যন্ত অ লগুলোকে পরিদর্শনের জন্য বেছে নেওয়া হয় যেখানে কোন এনজিও’র কার্যক্রম পরিচালিত হয়নি।

মারসি মালয়শিয়া থেকে তিন সদস্যের দলটির নেতৃত্বে ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ এবং উত্তর আমেরিকা অ লের সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার মুহাম্মদ আবদুল্লাহ আবদ ওয়াহাব ইসারি। এছাড়া মালয়েশিয়ার সরকারি চিকিৎসক ডঃ সোহ ইহ হারং এবং উদ্যোক্তা ভিভেগানন্থন রাজানগাম লজিস্টিক সহায়তার জন্য সেচ্ছাসেবক হিসেবে যোগদান করেন ।

পানি ও স্যানিটেশন ব্যবস্থায় বিপর্যয় এবং যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি ও স্যানিটেশন না থাকার পাশাপাশি বেশিরভাগ নলকূপ বন্যার পানিতে ডুবে যাওয়ায় পরিষ্কার পানির অপ্রাপ্যতায় এসব অ লের স্থানচ্যুত জনগোষ্ঠীর মধ্যে পানিবাহিত বিভিন্ন রোগ যেমন, ডায়রিয়া, শ্বাসতন্ত্রের সংক্রমণ, ত্বকের রোগ, টাইফয়েড, চোখের সংক্রমণ, জন্ডিস, জ্বর এবং মাথাব্যাথার প্রকোপ ছিল তীব্র ।
বাংলাদেশে বন্যা পরিস্থিতির অবনতির পরিপ্রেক্ষিতে মারসি মালয়শিয়া সম্প্রতি “বাংলাদেশ রিলিফ ফান্ড” নামে সাহায্যের আহবান জানায়। এই আহবানে মালয়শিয়ায় বসবাসরত অনেক প্রবাসী বাংলাদেশীর পাশাপাশি মালয়শিয়ান নাগরিকরাও সাড়া দিয়েছে। বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় মোবাইল ফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেড’র- মূল প্রতিষ্ঠান আজিয়াটা গ্রুপ বারহাদ এই তহবিলে ৪০ হাজার মালয়শিয়ান মুদ্রা সহায়তা দিয়েছে। এছাড়াও আজিয়াটার সহযোগি প্রতিষ্ঠান ইডটেকো গ্রুপ ১০ হাজার মালয়শিয়ান মূদ্রা প্রদান করেছে। ইডটকো বাংলাদেশ বর্তমানে টেলিযোগাযোগ অবকাঠামোভিত্তিক প্রতিষ্ঠান হিসাবে বাংলাদেশে কাজ করছে।

আর্ন্তজাতিক অলাভজনক প্রতিষ্টান মারসি মালয়শিয়া মূলত সংকট চলাকালীন ও স্বাভাবিক সময়ে অসহায় সম্প্রদায়ের জন্য চিকিৎসা বিষয়ক ত্রাণ, টেকসই স্বাস্থ্য সংক্রানÍ উন্নয়ন এবং ঝুঁকি কমানোর কার্যক্রম পরিচালনা করে।
গত এক দশক ধরে মারসি মালয়শিয়া বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন দুর্যোগে তাদের টিম পাঠিয়ে সংকট কাটিয়ে উঠতে কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। সোসাইটিস অ্যাক্টের অধীনে একটি নিবন্ধিত সমাজ সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান হিসাবে এখন পর্যন্ত মারসি মালয়শিয়ার’র পাঁচ’শরও বেশি সদস্য এবং প্রায় সাত হাজার নিবন্ধিত স্বেচ্ছাসেবী রয়েছে।

টেকজুম ডটটিভি/১৩ সেপ্টেম্বর/এসআর

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন