জ্বালানি ব্যবহার ছাড়াই শুধু অভিকর্ষ শক্তি ব্যবহার করে বিদ্যুৎ উৎপাদনের প্রযুক্তি আবিষ্কার করেছেন দিনাজপুরের মো. শাহিদ হোসাইন।

শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে আয়োজিত ‘হেকমত ইঞ্জিন’ নামের প্রযুক্তিটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তার এই আবিষ্কার কথা জানান শাহিদ।

শাহিদ হোসাইন জানান, এ পদ্ধতিতে বিদ্যুৎ উৎপাদনে প্রথাগত কোনো্ জ্বালানির মতো তেল, গ্যাস, কয়লা ইত্যাদি দরকার হবে না। এই আবিষ্কারকে ‘হেভি সারকুলার মুভিং অবজেক্টস ট্রিগারিং এনার্জি’ বা হেকমত ইঞ্জিন বলা হয়।

ইঞ্জিনটি পরীক্ষামূলকভাবে দুই বছর ধরে গাজীপুরের টঙ্গীতে ৮০ কিলোওয়াট ক্ষমতার একটি পাওয়ার প্ল্যান্টে সফলতার সঙ্গে চলছে বলেও জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে বিজ্ঞানী ড. শমসের আলী বলেন, বাণিজ্যিকভাবে এই প্রযুক্তিতে উৎপাদিত বিদ্যুতের প্রতি ইউনিটের দাম পড়বে সর্ব্বোচ ৭৫ পয়সা। বর্তমানে দেশে বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদিত বিদ্যুতের খরচ প্রতি ইউনিট ছয় থেকে আট টাকা। নতুন এই প্রযুক্তিতে বিদ্যুৎ উৎপাদন করলে কয়েক হাজার কোটি টাকা সাশ্রয় হবে। প্রযুক্তিটি ৩০ বছর পর্যন্ত ব্যবহার করা যাবে বলেও জানান তিনি।

শাহিদ বলেন, এক বছর আগে আমেরিকার একটি কোম্পানি দেড় মিলিয়ন ডলার দিয়ে এটি কিনতে চেয়েছিল; কিন্তু বিক্রি করিনি। বাংলাদেশের মানুষ এই প্রযুক্তির সেবা পাক, তা-ই আমি চাই। তবে সে জন্য প্রয়োজন সরকারি বা বেসরকারি পৃষ্ঠপোষকতা।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন