সফটওয়্যারের স্বাধীনতা আন্দোলনের পুরোধা ব্যক্তি রিচার্ড ম্যাথিউ স্টলম্যান বলেছেন, ‘সাধারণ কম্পিউটার তথা প্রযুক্তি ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্যের নিরাপত্তা এবং ভবিষ্যৎ প্রযুক্তি পরিকল্পনায় সচেতনতা জরুরি। বিভিন্ন স্তরের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান কর্তৃক ব্যক্তিতথ্যের নিরাপত্তার হুমকির বিষয়গুলো নিয়ে সবাইকে সচেতন ও সতর্ক থাকতে হবে। সমাজের প্রতিটি স্তরে মুক্তপ্রযুক্তি এবং সফটওয়্যার ব্যবহারের স্বাধীনতার প্রয়োজনও অনেক।’

প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে এসে ‘একটি মুক্ত ডিজিটাল সমাজ’ শীর্ষক সেমিনারে দেওয়া বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

শুক্রবার বিকেলে ঢাকার ড্যাফোডিল আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয় (ডিআইইউ) মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সেমিনারে দুই ঘণ্টার বেশি সময় ধরে বক্তৃতা করেন রিচার্ড স্টলম্যান। ডিআইইউ এবং ফাউন্ডেশন ফর ওপেন সোর্স সলিউশন, বাংলাদেশ (এফওএসএস) আয়োজিত এ সেমিনারের শুরুতে বক্তব্য দেন ডিআইইউর সফটওয়্যার প্রকৌশল বিভাগের প্রধান তৌহিদ ভূঁইয়া ও এফওএসএস বাংলাদেশের মহাসচিব সাজেদুর রহিম জোয়ারদার। স্টলম্যানের হাতে স্মারক উপহার তুলে দেন ডিআইইউর পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান মো. সবুর খান।

নিজের বক্তব্যে রিচার্ড স্টলম্যান সফটওয়্যার স্বাধীনতার প্রয়োজনীয়তা ও গুরুত্বের কথা তুলে ধরেন। মুক্ত প্রযুক্তি ও মুক্ত প্রযুক্তি আন্দোলনের জন্য মুক্ত সফটওয়্যার ফাউন্ডেশন (এফএসএফ) প্রতিষ্ঠা করেন রিচার্ড ম্যাথিউ স্টলম্যান। প্রযুক্তি খাতে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য ইন্টারনেট হল অব ফেমে উপস্থাপিত হয়েছেন তিনি।

এসিএমের গ্রেস হপার পুরস্কার, ম্যাকআর্থার ফাউন্ডেশনের ফেলোশিপ, সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে অবদানের জন্য তাকেদা পুরস্কারসহ বিশ্বের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সম্মানসূচক ডিলিট ডিগ্রি পেয়েছেন তিনি। ১৯৮৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসে সফটওয়্যারের স্বাধীনতা বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে তিনি চালু করেন ‘প্রজেক্ট জিএনইউ’।

নুরুন্নবী চৌধুরী

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন