বিটকয়েন কি? কিভাবে আয় করবেন?

0

অনলাইন ডেস্ক, টেকজুম ডটটিভি// ক্রিপ্টোকারেন্সি ‘বিটকয়েন’ (bitcoin) এর ব্যবহার ক্রমান্বয়ে বেড়েই চলছে। গত ১৫ আগস্ট বাংলাদেশ এশিয়ার মধ্যে প্রথম দেশ হিসেবে বিটকয়েন ফাউন্ডেশনের সদস্যপদ পেয়েছে। কিন্তু বিটকয়েন কি, কিসের জন্য? কি কাজে প্রয়োজন? এরকম নানাবিধ প্রশ্নের উত্তরের সন্ধানে বাংলানিউজ তার পাঠকদের জন্য নিয়ে এসেছে বিটকয়েন-এর উপর ধারাবাহিক প্রতিবেদন। প্রথম পর্বে থাকছে ক্রিপ্টোকারেন্সি ‘বিটকয়েন’ পরিচিতি।

বিটকয়েন কি??
বিটকয়েন হল ক্রিপ্টোগ্রাফিকের মাধ্যমে লেনদেন হওয়া সাংকেতিক মুদ্রা। এটি লেনদেন সম্পূর্ণ অনলাইনে করা হয়। ২০০৮ সালে সাতোশি নাকামোতো এটির প্রচলন করেন। বিটকয়েনকে সাতাশিও বলা হয়। এটির লেনদেনটি বিটকয়েন মাইনার নামে একটি সার্ভার কর্তৃক সুরক্ষিত থাকে। ২১৪০ সাল পর্যন্ত নতুন সৃষ্ট বিটকয়েনগুলো প্রত্যেক চার বছর পরপর অর্ধেকে নেমে আসবে। ২১৪০ সালের পর ২১ মিলিয়ন বিটকয়েন তৈরী হয়ে গেলে আর কোন নতুন বিটকয়েন তৈরী করা হবে না।বর্তমানে বিটকয়েন স্বর্ণের চেয়ে দামি। ১ বিটকয়েনের মূল্য ২৭৫৪.৯৫ ডলার বা ২২৪১৮৪ টাকা।

বিটকয়েন আয় করার উপায়

বিটকয়েন আয় করার জন্য আপনাকে আগে একটি ওয়ালেট বানাতে হবে। ওয়ালেট খোলার জন্য এই লিংকে যান।

ওয়ালেট খোলা হওয়ার পর হলো আসল কাজ বিটকয়েন আয় করা।বিটকয়েনের আয়ের জন্য এই লিংকে যেতে হবে।

এরপর ই-মেইল পাসওর্য়াড এবং ক্যাপচা পূরণ করার মাধম্যে অ্যাকাউন্ট হয়ে যাবে। ই-মেইলের মাধ্যমে ভেরিফিকেশন করতে হবে।

প্রতি ঘণ্টায় রোল করার মাধ্যমে আপনি বিটকয়েন আয় করতে পারবেন। তাছাড়া মাল্টিপাই গেইম খেলে আয় করতে পারবেন। এই সাইটে মিনিমাম ০.০০০৩০০০০ বিটিসি হলে আপনি তা আপনার ওয়ালেটে Withdraw করতে পারবেন। প্রতি সপ্তাহে রবিবার এরা Withdraw দিয়ে থাকে।

আপনার ওয়ালেট থেকে বিটকয়েন অ্যাড্রেস নিতে হবে। এই অ্যাড্রেসই আপনার আয় করা বিটকয়েন চলে যাবে। খুব সহজে এই সাইট থেকে বিটকয়েন আয় করা সম্ভব।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন