ই-গভর্ণমেন্ট মাস্টার প্ল্যান প্রতিষ্ঠায়
১০ পৌরসভার সবকিছু অনলাইন হচ্ছে

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, টেকজুম ডটটিভি//  ২০২১ সালের মধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে দারিদ্র্য বিমোচন, সুশাসন ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে সরকার।

এ স্বপ্ন বাস্তবায়নে সহযোগিতা করার উদ্দেশ্যে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ২০১৭ মেলা প্রাঙ্গণ, বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের উইন্ডি টাউন ‘ডিজিটাল বাংলাদেশের জন্য ই-গভর্নমেন্ট মাস্টার প্ল্যান প্রণয়ন’ শীর্ষক সেমিনার এর আয়োজন করা হয়েছে।

সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। বিশেষ অতিথি ছিলেন কোরিয়া সরকারের বাংলাদেশে নিয়োজিত রাষ্ট্রদূত অন সিওং ডু। সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল এর নির্বাহী পরিচালক স্বপন কুমার সরকার।

পলক বলেন ‘জাতিসংঘের ই-গভর্নমেন্ট সার্ভে ২০১৬ এ প্রকাশিত হয়েছে যে, ইউকে নং ১ এবং কোরিয়া প্রজাতন্ত্র ৩ নম্বর। রিপোর্ট অনুযায়ী ১৯৩টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ ১২৪ তম স্থানে অবস্থান করছে। যদিও মনে হয় বাংলাদেশের খুব ভাল অবস্থানে নেই। তবে আমি মনে করি আমরা এই সেক্টরে উন্নীত করছি।’

পলক আরও বলেন,  ‘এখন দ্রুত এবং একটি পরিকল্পিতভাবে কাজ করার জন্য আমাদের ই-গভর্নমেন্টের জন্য একটি মাস্টারপ্ল্যান থাকতে হবে। এই ধরনের একটি মাস্টারপ্ল্যান তৈরির ক্ষেত্রে, ই-সরকার, কোরিয়া প্রজাতন্ত্রের নেতাদের একজন আমাদের সাহায্য করছে। আমাদের সমর্থন করার জন্য কোরিয়া সরকার ধন্যবাদ। যাইহোক, এটি আমাদের সরকারী নেতা যারা আমাদেরকে এমন একটি মাস্টারপ্ল্যান গঠন করতে সাহায্য করতে পারে।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘এটা আমাদের সংস্কৃতি, আমাদের পরিবেশ, আমাদের ক্ষমতা এবং আমাদের প্রয়োজন অনুযায়ী সব উপর ভিত্তি করে করা হবে। এজন্যই আমি আপনাদের সবাইকে অনুরোধ করছি যেন আমাদের কোরিয়ার প্রতিপক্ষের এই কর্মশালার মাধ্যমে আপনার প্রয়োজনীয়তা, অগ্রাধিকার, ক্ষমতা ইত্যাদি সম্পর্কে জানতে হয় যাতে আন্তঃসম্পর্ক এবং জ্ঞান ভাগ করার জন্য অন্যান্য সুযোগগুলি রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আইসিটি সেক্টরকে আরও সহজতর করার জন্য এবং সরকারের ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নের জন্য একটি মাস্টার প্ল্যান প্রণয়ন এর খুবই দরকার ছিল।’ ডিজিটাল বাংলাদেশ এর জন্য ই-গভর্ণমেন্ট মাস্টার প্ল্যান প্রতিষ্ঠায় সহযোগিতা করার জন্য কোরিয়া সরকার এবং কোরিয়া ইন্টারন্যাশনাল করপোরেশন এজেন্সী (KOICA) কে ধন্যবাদ দেন প্রতিমন্ত্রী।

তিনি আরও বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ এর জন্য ই-গভর্ণমেন্ট মাস্টার প্ল্যান প্রতিষ্ঠায় সহযোগিতা করার জন্য ডিজিটাল মিউনিসিপালিটি সার্ভিসেস সিস্টেম নামে একটি পাইলট প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। যার মধ্যে ১০টি পৌরসভাকে প্রাথমিক ভাবে অনলাইনে হোল্ডিং ট্যাক্স, পানির বিল, কাউন্সিলরের প্রশংসাপত্র, স্বয়ংক্রিয় সম্পত্তি রক্ষণাবেক্ষণ ও ই-ট্রেড লাইসেন্স সেবা থাকবে যা আগামিতে সারা দেশের সমস্ত পৌরসভা গুলোতে চালু করার পরিকল্পনা আছে।’

টেকজুমটিভি/এমআইজে

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন