সবার জন্য ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট

0

সবার জন্য ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সুবিধা নিশ্চিত করতে দেশের টেলিযোগাযোগ ও আইসিটির (তথ্য যোগাযোগ ও প্রযুক্তি) জন্য একটি রোডম্যাপ তৈরি করার পরিকল্পনা করেছে বর্তমান সরকার।

স্থানীয় এবং বিদেশি বিখ্যাত আইটি ফার্মকে বিনিয়োগে উৎসাহিত করার মাধ্যমে আইটি পেশায় তরুণদের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা হবে এই রোডম্যানের উদ্দেশ্য।

আইটি প্রদর্শনী ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড-২০১৪ এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এতে সিলিকন ভ্যালির ফেনক্স ভিসি প্রযুক্তি, ইন্টারনেট এবং মিডিয়া সেক্টরে ২০ কোটি মার্কিন ডলার বিনিয়োগের প্রস্তাব করে।

এই রোডম্যাপ বাস্তবায়নে বাংলাদেশ ইতোমধ্যেই দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবলে যোগ দিয়েছে। ২০১৬ সালের প্রথম তিন মাসের মধ্যে ইন্টারনেটের গতি বৃদ্ধিতে এটি অত্যন্ত সহায়ক হবে।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং পশ্চিমাঞ্চলীয় ইউরোপের মধ্যে ডাটা ও ভয়েসের’র জন্য দ্বিতীয় কেবল হবে উচ্চ পর্যায়ের সংযোগ। সরকার ইতিমধ্যেই ২৯৬৭ কোটি ৯৫ লাখ টাকা ব্যয়ে কক্ষপথে দেশের প্রথম স্যাটেলাইট ‘বঙ্গবন্ধু’ উৎক্ষেপণে প্রক্রিয়া শুরু করেছে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ রেগুলেটরি কমিশন (বিটিআরসি) ২০১৭ সালের জুনের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। পাশাপাশি সরকার দেশের ৪,৫১৬টি ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্রকে প্রশিক্ষিত উদ্যোক্তাদের অধীনে কাজ করতে তৃণমূল পর্যায়ে ফ্রিল্যান্সারের সুযোগ করে দিতে মিনি আউটসোসিং-এ রূপান্তর করার উদ্যোগ নিয়েছে। ইতিমধ্যেই দেশের প্রায় ২শ’টি উপজেলা ফাইবার অপটিক ক্যাবলের সঙ্গে সংযুক্ত হয়েছে।

জেলা পর্যায়ে ১৫ হাজার ফ্রিল্যান্সার সৃষ্টি হবার পর সরকার উপজেলা পর্যায়ে ৫৫ হাজার ফ্রিল্যান্সার সৃষ্টি করতে ‘লানিং অ্যান্ড আর্নিং ডেভলপমেন্ট’ প্রকল্পের দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজ শুরু করেছে। বর্তমানে প্রায় ছয় লাখ ফ্রিল্যান্সার আইটি সেক্টরে কাজ করছে।

সূত্র: বাসস

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন