স্বল্প মূল্যের সেরা ফোন জিএম-৬ডি

0

অনলাইন ডেস্ক, টেকজুম ডটটিভি// বাংলাদেশের বাজারে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করলো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক কোম্পানির স্মার্টফোন ব্র্যান্ড ‘জেনারেল মোবাইল’।

দেশের বাজারে জেনারেল মোবাইলের দুটি মডেল জিএম-৫ ও জিএম-৬ডি নিয়ে এলো অনলাইন মার্কেটপ্লেস দারাজ ডটকম ডটবিডি।

দারাজ অনলাইনে শপে জিএম-৫ পাওয়া যাবে ৯ হাজার ৯৯০ টাকায় এবং জিএম-৬ডি পাওয়া যাবে ১৩ হাজার ৯৯৯ টাকায়।

জিএম-৬ডি স্মার্টফোনটির আদ্যোপান্ত নিয়ে আজ কথা বলবো। টেকজুমের পাঠকদের জন্য এখানে তা  তুলে ধরা হলো-

ডিসপ্লে
৫ ইঞ্চি (৭২০×১২৮০) পিএক্স রেজুলেশন ডিসপ্লে ও কর্নিং গরিলা গ্লাস ব্যবহার করেছে। ডিসপ্লেটির কালার ব্যালেন্স ও ব্রাইটনেস ৪০০ সিডি/এম২ (মিনিট), ইনসেল টেকনোলজি বেশ ভালো। ফোনের ডিসপ্লে সাইজ বাড়ানো ছাড়াই বেশকিছু ভিজুয়্যাল সুবিধা উপভোগ করার সুযোগ দিয়েছে। মধ্যম বাজেটের ফোনগুলোর মধ্যে এরকম ডিসপ্লে’র ফোন তেমন একটা দেখা যায় না।

হার্ডওয়্যার ও ডিজাইন
ফোনটি পরিচালনার জন্য নতুন জেনারেশনের মিডিয়াটেক এমটি৬৭৩৭টি মডেলের ৬৪ বিট কোয়াড-কোর ১.৫ গিগাহার্জের প্রসেসর সংযোজন করা হয়েছে। ফোনটিতে অ্যান্ড্রয়েডের সর্বাধুনিক ভার্সন গুগল অ্যান্ড্রয়েড ওয়ান এর নুগাট ৭.০ ব্যবহার করা হয়েছে এবং বর্তমনে এই ফোনটি অ্যান্ড্রয়েড এর সর্বশেষ ভার্সন ওরিও ৮.০ আপডেট নিয়েছে, যা দেশের বাজারে থাকা অনেক নামিদামি স্মার্টফোনেও এখন আসে নাই।

এর সাথে কোন ডেলিগেটেড বাটন থাকছে না, থাকছে হোম বাটন। আর হোম বাটনটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরের কাজ করে এই স্মার্টফোনে। এর রাইট প্যানেলের একটু উপরে থাকছে পাওয়ার বাটন এবং লেফ্ট প্যানেলের উপরে থাকছে ভলিউম বাটন। ফোনটি পেছনের ঠিক মাঝ বরাবর জেনারেল মোবাইলের লোগো রয়েছে।

ক্যামেরাটির ওপরের ডানে আছে ডুয়েল এলইডি ফ্ল্যাশ। এর আয়তন (১৪৪×৭১.৩×৮.৬ মিলি) এবং ওজন ১৫০ গ্রাম (৫.৬৪ ওজ)। তবে ৩হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের লাই-পো ব্যাটারি ব্যবহার করেছে। যা ননস্টপ পাঁচ ঘন্টা চলবে এবং স্বাভাবিকভাবে দেড়দিন পর্যন্ত চলবে।  এর ব্যাটারি সাপোর্ট নিয়ে কোন অভিযোগ নেই। আর সব থেকে মজার বিষয় হল এই ফোনকে যেকেও সামনে থেকে দেখলে ভাববে এইটা আইফোন ১০ ।

ক্যামেরা
কম মূল্যের জেনারেল মোবাইল তাদের ক্যামেরায় একটু বেশি নজরে রেখেছে। ফোনটিতে ৮ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা এবং ১৩ মেগাপিক্সেলের রিয়ার ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে। এর রেয়ার ক্যামেরার সাথে ডুয়েল ফ্লাশ। এর ডুয়েলাইট ফ্লাশের কারনে কম আলোতেও বেশ ভাল ছবি তোলা যায়। তবে এর ক্যামেরা ‌স্যাটার স্পিড একটু স্লো। তবে আরেকটু ইমপ্রুভ হওয়ার প্রয়োজন ছিল। এর সেলফি ক্যামেরার সাথে লোলাইট সেলফি তোলার জন্য একটি ফ্রন্ট ফ্লাশ লাইট এবং আরও আছে ফেসমুড সিস্টেম। আর দেশের বাজারে এই মূল্য স্মার্টফোনে এর থেকে ভালো ক্যামেরা আর একটিও নাই।

স্পিকার অ্যান্ড চার্জার
লাউডলি ফোনে গান শুনতে যারা পছন্দ করেন তাদের জন্য উপযুক্ত ‘ডলবি’ অডিও সিস্টেম। হেডফোন দিয়ে অডিও যাদের পছন্দের ফোন হতে পারে এই ফোনটি। সিঙ্গেল স্পিকারের অডিও পারফরমেন্স বেশ ভালোমানের। এর নিচের প্যানেলের দুই পাশে থাকছে সাউন্ড বের হবার বটম ডিজাইন এবং মাঝে থাকছে চার্জার পোর্ট। যদিও মূল্যের বিবেচনায় এ ফোনটি ব্যবহারকারীদের হতাশ করবেনা।

পারফরমেন্স
ফোনটি পরিচালনার জন্য মিডিয়াটেক এমটি৬৭৩৭টি মডেলের ৬৪ বিট কোয়াড-কোর ১.৫ গিগাহার্জের প্রসেসর সংযোজন করা হয়েছে। ফোনটিতে অ্যান্ড্রয়েডের সর্বাধুনিক ভার্সন গুগল অ্যান্ড্রয়েড ওয়ান এর নুগাট ৭.০ ব্যবহার করা হয়েছে তবে আমি এখন অ্যান্ড্রয়েড এর সর্বশেষ ভার্সন ওরিও ৮.০ ব্যবহার করছি। দৈনন্দিন ব্যবহার থেকে সাধারণ গেমিং, সবকিছুই প্রসেসরটি চালিয়ে নিতে পারবে এই ফোনটি দিয়ে। ফোনটি ৩ গিগাবাইট সংস্করণটিতে র‌্যামের সংকট দেখা যায়নি। এতে আরও থাকছে ৩২ জিবি স্টোরেজ সুবিধা যা এসডি কার্ড ব্যবহার করে ১২৮ জিবি পর্যন্ত স্টোরেজ করা যাবে। আর দেশের বাজারে এই মূল্যের ৩ জিবি র‌্যামের ফোন আছে বলে আমার জানা নাই ।

ইতিকথা
গেমিং, ব্যাক ক্যামেরা, সেলফি ক্যামেরা ব্যাটারি লাইফ এসব দিকে দিয়ে বিবেচনা করলে ফোনটি বেশ ভালো মনে হয়েছে। এইদামে সব দিক মিলালে আর কোন ব্যান্ডের ফোন বাজারে তেমন একটা দেখা যায়না।

টেকজুম ডটটিভি/এমআইজে

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন