সারাদেশকে বদলাতে চান মোস্তাফা জব্বার

0

ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে আগামী এক বছরের মধ্যে দেশকে বদলে দেয়ার চ্যালেঞ্জ নিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের নতুন মন্ত্রী তথ্যপ্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বার।

তিনি বলেন, সারাদেশকে বদলাতে হলে সরকারে সব সেক্টরকে ডিজিটালাইজড করতে হবে। আর এসব কাজ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য আমি একবছর যুদ্ধ করে যাবো। আগে যুদ্ধ করেছি সাধারণ জনগণের কাতার থেকে। এখন যুদ্ধ করবো সংসদে থেকে। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি এই যুদ্ধে জয়ী হবো।

বুধবার বিকেলে রাজধানীর কারওয়ান বাজারস্থ বিডিবিএল ভবনে অবস্থিত বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস(বেসিস) আয়োজিত সংবর্ধনা শেষে সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন নতুন মন্ত্রী তথ্যপ্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বার।

নবনিযুক্ত এই মন্ত্রী বলেন, ‘মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর ১০০ দিনের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি। যার প্রথমে রয়েছে সারাদেশের ইন্টারনেটের দাম কমানো এবং ইন্টারনেটের আওতায় সবাইকে আনা। মানুষের পঞ্চম মৌলিক অধিকার ইন্টারনেটের মূল্য সাধারণ মানুষের ধরা ছোঁয়ার বাইরে। অন্যদিকে সারাদেশের ইন্টারনেটের গতি অনেক স্লো। এটাকে আরো গতিশীল করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।’

ইন্টারনেটের মূল্য অনেক বেশি উল্লেখ করে মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘ইন্টারনেটের মূল্য অনেক বেশি। এজন্য অপারেটরদের পাশাপাশি বিটিআরসিও দায়ী। বিটিআরসি এখনও ইন্টারনেটের দাম বেঁধে দিতে পারেনি। এটা তাদের ব্যর্থতা।’

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের এই মন্ত্রী বলেন, ‘আমার হাতে আছে মাত্র একটি বছর। আমাকে হেলে-দুলে কাজ করলে চলবে না। আমার যা করার তা এই এক বছরেই করতে হবে। এজন্য আপনারা আমাদের জানান কী কী করতে হবে।’ এবিষয়ে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

হার্ডওয়্যার খাতকে প্রধান্য দিয়ে এই তথ্যপ্রযুক্তিবিদ বলেন, ‘হার্ডওয়্যার খাত এখন প্রাধান্য পাচ্ছে। দেশে প্রযু্ক্তিপণ্য যাতে উৎপাদিত হয় সেজন্য এখাতে কাঁচামাল আমদানি শুল্ক এক শতাংশে নামিয়ে আনা হয়েছে। আমার বিশ্বাস আগামী কয়েক বছরের মধ্যে বাংলাদেশে উৎপাদিত প্রযুক্তি পণ্য দেশের মানুষের চাহিদা মেটাবে।’
সংবাদ সম্মেলনে বেসিসের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন