ব্যাটারি বাঁকানোও যাবে!

0

প্রযুক্তিপণ্যে ‘বহনযোগ্য’ শব্দ যোগ করার পেছনে বারবার চার্জযোগ্য ব্যাটারির অবদান বোধ হয় সবচেয়ে বেশি। আবার এ ব্যাটারিই কিন্তু যন্ত্রগুলোর পুরুত্ব এবং ওজন বাড়ানোর জন্য বেশ কিছুটা দায়ী। তবে এবার যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়াভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ‘ইমপ্রিন্ট এনার্জি’ এই সমস্যা সমাধানের উপায় বের করেছে। প্রতিষ্ঠানটি এমন একধরনের দীর্ঘস্থায়ী কিন্তু পাতলা পুনরায় চার্জযোগ্য ব্যাটারি তৈরি করেছে, যা সহজেই বাঁকানো যাবে।

প্রাথমিকভাবে পরিধেয় প্রযুক্তি, চিকিৎসা যন্ত্রপাতি এবং সেন্সরে ব্যবহার করার চেষ্টা হলেও পরে মোটামুটি সব ধরনের যন্ত্রেই এসব ব্যাটারি ব্যবহার করা যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বেশি ক্ষমতাসম্পন্ন ও ক্ষুদ্র আকার এই ব্যাটারিকে করেছে অনন্য।

ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া বার্কলেতে পড়ার সময় এই বিষয়ে গবেষণা শুরু করেন প্রতিষ্ঠানটির সহ-প্রতিষ্ঠাতা ক্রিস্টিন হো। ত্রিমাত্রিক (থ্রিডি) প্রিন্টারের মাধ্যমে ক্ষুদ্রাকারের জিংক ব্যাটারি তৈরির জন্য সেখানে তিনি জাপানের গবেষকদের সঙ্গে যোগ দেন।

স্মার্টফোন বা ল্যাপটপ কম্পিউটারের ব্যাটারিগুলোতে সাধারণত লিথিয়াম ব্যবহার করা হয়। কিন্তু লিথিয়াম অক্সিজেনের সংস্পর্শে এলে আগুন ধরার আশঙ্কা থাকায় এর ওপর পুরু আবরণ দিয়ে ঢেকে দেওয়া হয়। মূলত এই কারণেই ব্যাটারিগুলো পুরু ও ভারী হয়ে থাকে। তবে ইমপ্রিন্ট এনার্জির তৈরি ব্যাটারিতে জিংক ব্যবহার করায় আবরণের দরকার পড়বে না। প্রতিষ্ঠানটির অপর সহ-প্রতিষ্ঠাতা ব্রুকস কিনকেইডের মতে, তাঁদের তৈরি ব্যাটারিগুলোতে পাতলা লিথিয়াম এবং প্রিন্টেড ব্যাটারির শুধু ভালো দিকগুলো থাকবে। প্রিন্টেড ব্যাটারি সস্তা ও বেশি ক্ষমতাসম্পন্ন হলেও পুনরায় চার্জযোগ্য না। ইমপ্রিন্ট এনার্জির ব্যাটারিগুলো পুনরায় চার্জযোগ্য, সাশ্রয়ী, বেশি ক্ষমতাসম্পন্ন কিন্তু প্রতিক্রিয়াশীল উপাদান নেই। নতুন এই ব্যাটারিগুলো সফলভাবে ব্যবহার করা সম্ভব হলে প্রযুক্তিপণ্যগুলো নতুন এক মাত্রা পাবে।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন