তথ্যপ্রযুক্তিতে নারী উদ্যোক্তাদের পাশে এশিয়া ফাউন্ডেশন

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, টেকজুম ডটটিভি// এশিয়া ফাউন্ডেশনের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হলো নারী উদ্যোক্তাদের জন্য তথ্য প্রযুক্তির সুযোগ প্রসার শীর্ষক আলোচনা।

অনুষ্ঠানে সঞ্চালকের ভূমিকা পালন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. আবু ইউসুফ।

আলোচনার শুরুতে আয়োজনের উদ্দেশ্য সম্পর্কে সবাইকে অবহিত করেন এশিয়া ফাউন্ডেশনের সহযোগী পরিচালক সৈয়দ আল মুতি। তিনি জানান এশিয়া ফাউন্ডেশন নারী উদ্যোক্তাদের জন্য বিভিন্ন জেলায় ‘District Business Forum’ গঠন করেছে। ফোরামগুলোর মাধ্যমে তথ্যপ্রযুক্তিতে নারীদের ব্যবসায় উদ্বুদ্ধকরণ এবং ব্যবসা প্রসারের নিয়ামক হিসাবে প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে।

তথ্য প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ মুনির হাসান বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে নারী উদ্যোক্তারা মূলত তিন ধরনের সুফল পান। প্রথমত- তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে নারীরা ব্যবসা সম্পর্কে নতুন ধারনা পায়, দ্বিতীয়ত- নারীদের ব্যবসায়িক দক্ষতা বৃদ্ধি পায় এবং তৃতীয়তয়- উদ্যোক্তারা সমাজের বিভিন্ন স্তরে সংযোগ স্থাপন করতে পারে।

তথ্য প্রযুক্তি অধিদপ্তরের অতিরিক্তি সচিব পার্থ প্রতিম দেব বলেন, বাংলাদেশ সরকারের ভিশন টুয়েন্টি টুয়েন্টি ওয়ান এর অন্যতম লক্ষ্য হল বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করা এবং দারিদ্র্য দূর করা। এই লক্ষ্য অর্জনে নারী উদ্যোক্তা এবং তথ্য প্রযুক্তির ভূমিকা অনস্বীকার্য।

তিনি জানান, যে নারী উদ্যোগক্তাদের জন্য তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় তিনটি প্রকল্প চালাচ্ছেন। যেমন ‘বাড়ি বসে বড়লোক’ প্রকল্প মূলত মেয়েদের তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে ঘরে বসে আয়ের সুযোগ বৃদ্ধির প্রশিক্ষণ দেয়। আরেকটি প্রকল্প সাইবার ক্রাইমের শিকার নারীদের জন্য হেল্পলাইন সুবিধা দেয়। অপরদিকে লার্নিং এন্ড আরনিং প্রকল্পের মাধ্যমে আইসিটি দক্ষতা, আউটসোর্সিং বিষয়ক প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।

ওয়াহিদা নাসরিন, ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার, এসএমইএসপিডি (Small & Medium Enterprise Special Program Development) বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংক ২০১০ সাল থেকে সকল ব্যাংককে “নারীবান্ধব ডেস্ক” রাখার নির্দেশ দিয়েছে যেখানে নারীরা তাদের ব্যবসাসংক্রান্ত সকল বিষয়ের সহযোগিতা পান। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ ব্যাংক সকল ব্যাংককে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে নতুন নারী উদ্যোক্তাদের সর্বোচ্চ ২৫ লাখ টাকা জামানতবিহীন ঋণ প্রদানের নির্দেশনা দান করে।

এশিয়া ফাউন্ডেশনের সিনিয়র ডাইরেক্টর ভেরনিকা সালজে লোজাক বলেন, নারীর উন্নয়ন ছাড়া দেশের উন্নয়ন সম্ভব না। ব্যবসায় যেমন তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানো উচিৎ তেমনি তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবসায় নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধি করা উচিৎ। ইউওয়াই সিস্টেমস লিমিটেডের সিইও ফারহানা রাহমান বলে ব্যবসা শুরু করার ক্ষেত্রে নারীরা আত্মবিশ্বাসের অভাবে ভোগেন। সেই বিশ্বাস গড়ে তোলা এবং কার জন্য কি প্রশিক্ষণের প্রয়োজন সে অনুযায়ী প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করলে তা নারী উদ্যোগক্তাদের জন্য বেশি সুফল বয়ে আনবে।

পরবর্তী পর্যায়ে বিভিন্ন বিভাগের উইমেন চেম্বার অফ কমার্স থেকে আসা প্রতিনিধিদের সাথে একটি উন্মুক্ত আলোচনা হয়। আলোচনায় ব্যাংকগুলোর ঋণ গ্রহণ প্রক্রিয়া সহজীকরণ, ট্রেড লাইসেন্স সংক্রান্ত জটিলতা নিরসন এবং বিভিন্ন প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহের জন্য গবেষণার মাধ্যমে ডাটাবেজ তৈরি করার কথা বলা হয়। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নারী উদ্যোক্তাদের সমস্যা সমাধানের অনুরোধ করা হয়।

সৈয়দ আল মুতি অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে এশিয়া ফাউন্ডেশনের ভবিষ্যতে নারী উদ্যোক্তাদের নিয়ে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন এবং নারী উদ্যোক্তাদের নানা সমস্যাগুলো নিয়ে কাজ করার পরিকল্পনার কথা জানান।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন