নিজস্ব প্রতিবেদক, টেকজুম ডটটিভি// ভারতের পূর্বাঞ্চলের সাত রাজ্যে ব্যান্ডউইথ পেতে শুক্রবার বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করেছে ভারত সঞ্চার নিগার লিমিটেড (বিএসএনএল)।

শনিবার ভারত এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে এ বিষয়ে শুধু কিছু আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হবে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্র।

বাংলাদেশ থেকে আপাতত ১০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ নেবে ভারতীয়রা। এর মূল্য ধরা হয়েছে মাসে এক লাখ ডলার। বছর শেষে এ ব্যান্ডউইথ রপ্তানি থেকে ১০ কোটি টাকার মতো আয় হবে বলে হিসাব করেছে বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি (বিএসসিসিএল)।

শুক্রবার রাতে চুক্তিকে সই করেন বিএসসিসিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনোয়ার হোসেন ও বিএসএনএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অনুপম শ্রীকস্তবা।

শুক্রবার সন্ধ্যায় বিএসএনএলের প্রতিনিধি দল ঢাকায় এসে পৌঁছালে রাত ৮টার ‍দিকে চুক্তি হয়।

চুক্তির খবরটি নিশ্চিত করেছেন বিএসসিসিএলের একাধিক সিনিয়র কর্মকর্তা। তবে ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনোয়ার হোসেন বলছেন, তারা চুক্তিতে অনুস্বাক্ষর করেছেন। অনেকগুলো কাজই শেষ হয়েছে এখন আনুষ্ঠানিকতা বাকি।

বর্তমানে সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানির হাতে আছে ২০০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ। এর মধ্যে স্থানীয় পর্যায়ে ব্যবহার হচ্ছে মাত্র ৩২ জিবিপিএস। ভারতীয়রা ১০ জিবিপিএস নিলে ব্যবহার বেড়ে দাঁড়াবে ৪২ জিবিপিএস।

আপাতত এক বছরের জন্য চুক্তি হচ্ছে। তবে মাঝখানে একবার পরিস্থিতি মূল্যায়ন করে ব্যান্ডউইথ বাড়ানোর ব্যবস্থা করা হতে পারে।

মনোয়ার হোসেন বলেছেন, ভারতীয়দের অনেক বেশি পরিমান ব্যান্ডউইথ লাগবে। আর বাংলাদেশই হচ্ছে তাদের জন্য সবচেয়ে সেরা বিকল্প।

সূত্র জানিয়েছে, প্রথম দফায় আগরতলা আর বাংলাদশে অংশে আখাউড়ার মধ্যে সংযোগ স্থাপিত হলে ত্রিপুরায় এই ব্যান্ডউইথ যাবে। এর জন্য লিংক স্থাপনে কিছুটা সময় লাগবে।

ভারতের ব্যান্ডউইথ দেওয়ার পাশাপাশি বিএসসিসিএল ইতালির টেলিকম ইতালিয়া স্পার্কালসের কাছেও ব্যান্ডউথ বিক্রির চেষ্টা করছে। তবে টেলিকম ইতালিয়া স্পার্কালসের জন্য ব্যান্ডউইথের মূল্য অনেক কম ধরা হয়েছে।

এদিকে শনিবার বিকালে চুক্তি বিষয়ক আনুষ্ঠানিকতার আগে বিএনএসএল প্রতিনিধিরা টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের চেয়ারম্যান সুনীল কান্তি বোসের সঙ্গে বৈঠক করবেন বলে জানা গেছে।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন