কম্পিউটার হঠাৎ বন্ধ হয়ে যাচ্ছে?

0

কাজ করার সময় দেখা গেল নিজে থেকেই কম্পিউটার হঠাৎ বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। অথচ কম্পিউটার বন্ধের কোনো নির্দেশ দেওয়া হয়নি। আগে থেকে কম্পিউটার বন্ধের সময়ও ঠিক করে রাখা হয়নি। সব সময় না হলেও প্রায়ই হয়তো এমনটা ঘটছে। এর সম্ভাব্য কারণ হিসেবে কম্পিউটার সিস্টেমের অতিরিক্ত গরম হয়ে যাওয়াটাকে দায়ী করা যায়। মাদারবোর্ডের চিপ এবং হার্ডডিস্ক ড্রাইভের মতো যন্ত্রাংশ বিদ্যুৎ ব্যবহার করে। স্বাভাবিকভাবেই সেখান থেকে তাপ উৎপন্ন হয়। এ ক্ষেত্রে কম্পিউটার অবশ্য যথেষ্ট বুদ্ধিমান। যখনই সিস্টেম সার্কিট খুব বেশি গরম হয়, স্থায়ী কোনো ক্ষতি হওয়ার আগে তখনই স্বয়ংক্রিয়ভাবে কম্পিউটার বন্ধ হয়ে যায়। সাধারণত যন্ত্রাংশের মধ্যে বাতাস চলাচলে বিঘ্ন ঘটে তাপমাত্রা বেড়ে গেলে এ সমস্যা তৈরি হয়। সব কম্পিউটারেই বেশ কিছু ছোট ছোট পাখা বা কুলিং ফ্যান থাকে। এগুলো কাজ না করলে বা কম্পিউটারের মধ্যে থাকা গরম বাতাস বের করার পথে প্রতিবন্ধকতা তৈরি হলে কম্পিউটার বন্ধ হয়ে যায়। ডেস্কটপ এবং ল্যাপটপের বাতাস চলাচলের পদ্ধতিটা ভিন্ন রকম। এ ধরনের সমস্যায় পড়লে যা করতে হবে—

ডেস্কটপ কম্পিউটার
বেশির ভাগ ডেস্কটপের সিপিইউ কেসিংয়ের পেছন দিকে বাতাস বের হওয়ার জায়গা থাকে। এগুলো যেন দেয়াল বা অন্য কোনো কারণে বন্ধ না হয়ে পড়ে সেটা দেখতে হবে। কম্পিউটার বন্ধ করে বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে ফেলুন। কেসিং খুলে ভেতরে দেখুন কোনো কিছু বাতাস আটকে ফেলছে কিনা, কুলিং ফ্যানের পাখাগুলো তার বা অন্য কিছুর সঙ্গে আটকে আছে কিনা। সার্কিটে ধুলোবালি জমলে ব্রাশ বা ‘কম্প্রেসড ডাস্টার’ দিয়ে সাবধানে পরিষ্কার করে ফেলুন। এবার বিদ্যুৎ-সংযোগ দিয়ে পরীক্ষা করে দেখুন পাখাগুলো ঠিকমতো ঘুরছে কিনা, তারপর কেসিং লাগিয়ে ফেলুন।

ল্যাপটপ কম্পিউটার
ল্যাপটপের ব্যাপারটা ডেস্কটপের চেয়ে জটিল। পেশাদারি দক্ষতা না থাকলে ল্যাপটপের কেসিং খোলা ঠিক নয়। বাইরে থেকে খেয়াল করে দেখুন বাতাস চলাচলের পথটা পরিষ্কার আছে কিনা, কুলিং ফ্যান ঘুরছে কিনা। চালু অবস্থায় বিছানা, সোফা বা বালিশ ওপরে কিংবা ব্যাগের ভেতরে ল্যাপটপ রাখা যাবে না। এতে ল্যাপটপ গরম হয়ে যায়, ক্ষতির আশঙ্কা থাকে। ল্যাপটপ অতিরিক্ত গরম হলে ল্যাপটপ কুলার কিনতে পারেন। বাজারে ৬০০ থেকে দুই হাজার টাকার মধ্যে এসব কুলিং প্যাড পাওয়া যায়।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন