নিজস্ব প্রতিবেদক, টেকজুম ডটটিভি// রাজধানীর খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটের নিচতলার অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক ইঞ্জিনিয়ারিং ইনোভেশন সামিট।

দেশের প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উদ্ভাবন নিয়ে দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক ইঞ্জিনিয়ারিং ইনোভেশন সামিটের আয়োজন করা হয়েছিল। আয়োজনের উদ্যোক্তা ইঞ্জিনিয়ারিং স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ।

গেটেই ছিল ‘হিউম্যানয়েড‘ নামের একটি রোবট। এই রোবটটি তৈরি করেছে চট্টগ্রাম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

হিউম্যানয়েড রোবটি তৈরির সঙ্গে ছিলেন চট্টগ্রাম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইনুল। তিনি মেকানিক্যাল বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। মাইনুল জানান, এই রোবটি মূলত আপদকালীন সময়ে কাজে লাগানোর জন্য তৈরি করা হয়েছে। এটাতে আছে শক্তিশালী ক্যামেরা। রেডিও ফিকোয়েন্সির মাধ্যমে সে লাইভ ফিড সরবরাহ করতে পারে। ফলে দূর নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার মাধ্যমে একে পরিচালনা করা খুব সহজ। বোমা নিস্ক্রিয় করার জন্য এটাকে ব্যবহার করা যেতে পারে। প্রোটোটাইপ এই রোবটি তৈরি করতে মাত্র ৭০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে।

এটির উদ্ভাবকরা জানান ভবিষ্যৎতে এর সঙ্গে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা যোগ করা হবে। ফলে রোবটি নিজে নিজেই সিদ্ধান্ত নিতে পারবে।

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল শিক্ষার্থী সামিটে অ্যানড্রয়েড ফোন চালিত স্মার্ট হুইল চেয়ার নিয়ে হাজির হয়েছে। এই হুইল চেয়ারটি মূলত শারীরিক প্রতিবন্ধীদের জন্য। স্মার্ট হুহল চেয়ারটির উদ্ভাবনী দলের অন্যতম সদস্য তরুণ দেব নাথ বলেন, ‘এই ধরনের চেয়ার বিদেশ থেকে আমদানী করতে গেলে ৪ থেকে ৫ লাখ টাকা খরচ হয়। সেখানে আমাদের খরচ হয়েছে মাত্র ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা।‘

বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং টেকনোলজির(বুয়েট) দুই শিক্ষার্থী আবিদ এবং ইমরান মাইন্ড কন্ট্রোলার নামের একটি বায়োনিক হাত তৈরি করেছেন। ঐ হাতটি মানুষের হাতের মতই সব কিছু ধরতে পারে।

আবিদ জানান, দুর্ঘটনায় আমাদের দেশে অনেক মানুষের হাত কাটা পরে। তাদের কথা চিন্তা করেই এটা তৈরি। এটার সঙ্গে আছে হেডসেট। এই হেডসেট ব্লুটুথ প্রযুক্তির মাধ্যমে বায়োনিক হাতের সঙ্গে সংযোগ বজায় রাখে। অন্যদিকে হেডসেট ইইজি‘র মাধ্যমে ব্যবহারকারীর মনের গতিবিধি শনাক্ত করতে পারে। এটি তৈরি করতে তাদের খরচ হয়েছে মাত্র ২৫ হাজার টাকা।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন