মার্কিন সেনাদের সেক্স, মিথ্যা ফাঁস করল হ্যাকাররা

0

এক মার্কিন সেনা তার কলেজের রুমমেটের স্ত্রীর সঙ্গে ২০ বছর ধরে গোপনে সম্পর্ক রেখেছেন। অবশ্যই সেটা যৌণ সম্পর্ক। দুই দশক ধরেই ওই মার্কিন সেনা এ সম্পর্কের কথা গোপন রেখেছেন তার স্ত্রী ও পরিবারের কাছে।

বর্তমানে ৫১ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি সেনাবাহিনী থেকে অবসরে আছেন। এতো দিন হয়তো বিগত জীবনের কথা ভেবে ভেবে সুখেই জীবন পার করছিলেন। তবে এ গল্প এখানেই শেষ হতে পারতো। যদি না বাধা হয়ে দাঁড়াতো হ্যাকার বা সাইবার হামলাকারীরা।

গত সপ্তাহে মার্কিন সেনাবাহিনীর ওয়েবসাইটে চালানো সাইবার হামলার পর তার এই গল্প শুধু তার পরিবার নয়, পুরো বিশ্বই জেনেছে।

শুধু তার নয়, ৪০ মিলিয়ন মার্কিন সেনার এমন হাজারো গোপন অভিসার, ব্ল্যাকমেইল, মিথ্যাচার, ঋণ, হুমকি দেওয়ার মতো বিভিন্ন অপকর্মের ইতিহাস ফাঁস হয়েছে।
মার্কিন সরকারি চাকুরির নিয়ম অনুযায়ী নিয়োগ পাওয়ার আগে ইউএস সিকিউরিটি ক্লিয়ারেন্স নিতে হয়। এতে চাকুরি প্রার্থীর ব্যক্তি জীবনের অনেক বিষয় আলোচনায় আসে। ওই সময় এ ব্যক্তি তার গোপন সম্পর্কের কথা গোয়েন্দা সংস্থার কাছে স্বীকার করেন।

বিষয়টি নিয়ে মার্কিন আদালত একটি রুলও জারি করেন। যা মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগ পেন্টাগনের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়। আদালতের ওই রুলে বলা হয় যেহেতু ওই ব্যক্তি সরকারের কাছে তার গোপন সম্পর্কের কথা স্বীকার করেছে তাই সে সিকিউরিটি ক্লিয়ারেন্স পেতে পারে।

বিষয়টি আদালতে গড়ালেও কখনোই ওই ব্যক্তির নাম প্রকাশ করা হয়নি। সরকার ও তার মধ্যে গোপনই ছিল রুমমেটের স্ত্রীর সঙ্গে চলা অভিসারের গল্প।

হ্যাকারদের রসবোধ বোধকরি একটু বেশিই। আর এই রসবোধ বার বারই বিব্রত করেছে মার্কিন সাম্রাজ্যকে। বিগত বছরগুলো বাদ দিলেও চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে মার্কিন সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন ওয়েবসাইটে সাইবার হামলা ছিল সাধারণ ঘটনা।

মার্কিন পর্ণগ্রাফির সাইট থেকে শুরু করে হলিউডের সুন্দরীরা কেউই বাদ যায়নি হ্যাকাদের আক্রমণ থেকে।

এসব সাইবার হামলার পর ইরান, উত্তর কোরিয়া, চীন বা রাশিয়াকে ঘুরে ফিরে দায়ী করেছে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু হ্যাকের ঘটনা কমেনি, বেড়েছে। হ্যাকিং রোধে কার্যকর কোন পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ পরাশক্তি দেশটি।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন