তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বাজেট বিষয়ে অর্থমন্ত্রীকে স্মারকলিপি

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, টেকজুম ডটটিভি// তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বাজেট বিষয়ে অর্থমন্ত্রীকে স্মারকলিপি পেশ করলো এ খাতের প্রধান তিনটি বাণিজ্য সংগঠন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস), বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার এন্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) ও ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডরস অ্যাসোসিয়েশন (আইএসপিএবি)।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত-এর কাছে স্মারকলিপিটি আনষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করেন বিসিএস সভাপতি এএইচ মাহফুজুল আরিফ ও বেসিস সভাপতি শামীম আহসান। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে তথ্য প্রযুক্তি বিভাগ ও বিসিএস এর যৌথ আয়োজনে অনুষ্ঠিত আইসিটি এক্সপো ২০১৫ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন তথ্য প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, তথ্য প্রযুক্তি সচিব শ্যাম সুন্দর শিকদার ও ডাক ও টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ইমরান আহমেদ চৌধুরী, এম পি।

স্মারকলিপিতে সফ্টওয়্যার ও আইটিইএস এর আয়কর অব্যাহতির সময়সীমা ২০১৯ থেকে বাড়িয়ে ২০২৪ পর্যন্ত করা এবং দেশিয় সফটওয়্যার কোম্পানীদের রক্ষার্থে বিদেশী সফটওয়্যার আমদানীর ওপর ৫% শুল্ক আরোপ করায় কম্পিউটার সরঞ্জামাদির ওপর ধার্য শুল্ক ২৫% থেকে নামিয়ে ১০% করায় অর্থমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানানো হয়।

বেসিস এর পক্ষ থেকে ৪ শতাংশ ভ্যাট নির্ধারণের ফলে ই-কমার্স খাতের বিকাশ বাধাগ্রস্থ হবে এবং এতে ক্রেতারা অনলাইনে কেনাকাটার ব্যাপারে নিরুৎসাহিত হবে উল্লেখ করে প্রাথমিকভাবে আগামী ৩-৫ বছরের জন্য ই-কমার্সের সকল লেনদেনের ওপর থেকে খুচরা বিক্রয় পর্যায়ে মূল্য সংযোজন কর প্রত্যাহারের প্রস্তাব করা হয়। একইসাথে ভ্যাট আদায়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড কর্তৃক ভ্যাট অটোমেশন ব্যবস্থা চালু করা এবং সফটওয়্যার ও আইটিইএস ব্যবসার জন্য বাড়িভাড়ার উপর ধার্যকৃত ৯% ভ্যাট প্রত্যাহার করার জন্যও বেসিস এর পক্ষ থেকে প্রস্তাব করা হয়।

স্মারকলিপিতে বিসিএস এর পক্ষ থেকে কম্পিউটার হার্ডওয়্যার খাতকে আইটিইএস হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা এবং এ খাতের প্রকৃত উন্নয়ন ঘটানোর লক্ষ্যে তথ্যপ্রযুক্তি খাতকে শিল্প হিসেবে ঘোষণা দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়।

এছাড়াও ডিজিটাল শিক্ষা উপকরণ, অর্থাৎ মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর, ডিজিটাল ক্যামেরা, ২৭ ইঞ্চি পর্যন্ত মনিটর, মাল্টি ফাংশনাল প্রিন্টার, ইন্টারনেট সংযোগের জন্য নেটওয়ার্কিং ডিভাইস, ইত্যাদির আমদানি শুল্ক মওকুফ করার জন্য প্রস্তাব করছি।

একইসাথে এইচএস কোড পুনর্বিবেচনা, পুনর্বিন্যাস এবং শুল্ক-কর হারের সুষম প্রয়োগ নিশ্চিত করার জন্যও প্রস্তাব করা হয়। ইন্টারনেট সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছানোর জন্য নেটওয়ার্ক যন্ত্রপাতির প্রয়োজন হয়। নেটওয়ার্ক যন্ত্রপাতির সহজলভ্যতা ও সুলভ মূল্য নিশ্চিতকল্পে ইন্টারনেট যন্ত্রপাতির উপরও কম্পিউটার-এর মত বিবিধ শুল্ক প্রত্যাহার করে নেয়ার জন্য স্মারকলিপিতে জোর দাবি জানিয়েছে আইএসপিএবি। একইসাথে ফাইবার অপটিক ক্যাবল এর জন্য বর্তমানে প্রযোজ্য ৩৭.৮৩% ভ্যাট ও শুল্ক উল্লেখযোগ্য হারে কমানোরও প্রস্তাব করা হয় এতে।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন