ই-কুরিয়ার এর বিরুদ্ধে হয়রানির অভিযোগ

0

নিউজ ডেস্ক, টেকজুম ডটটিভি// অনলাইন ভিত্তিক কুরিয়ার প্রতিষ্ঠান ‘ই-কুরিয়ার’ এর বিরুদ্ধে হইরানি মূলক কাজক্রম চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। ইস্মার্ট ফ্যাশান এর প্রধান নির্বাহী আরিফ হোসাইন ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ই-ক্যাব) এর অফিশিয়াল ফেসবুক গ্রুপে অভিযোগটি তুলে ধরেছেন।

নিচে তার অভিযোগটি তুলে ধরা হলো:

বেশ কিছু দিন যাবত ই-কুরিয়ার যে সমস্ত হইরানি মূলক কাজক্রম চালিয়ে যাচ্ছে সেটা সত্যি লজ্জা জনক। ই-কুরিয়ার আমাদেরকে অনেক কিছু বলেই আশ্বস্ত করে কিন্তু তার তেমন কিছু তাদের কাজে প্রতিফলিত হয় না। কাস্টমার পক্ষ থেকে আমার যে পরিমাণ কমপ্লেইন পাই তা সত্যিই আমাদের ব্যবসা অগ্রসর করতে বাধাগ্রস্থ করছে।

eSmart Fashion থেকে আমরা আমাদের প্রোডাক্ট পাঠানোর কয়েক দিন পরও কাস্টমারদের খোজ খবর নিয়ে রাখি কিন্তু তখন আমাদের প্রাই শুনতে হয়ই যে তারা হয় প্রোডাক্ট পাইনি হইত বা তারা এখনো কোন ফোনও পাইনি অথবা আজকে কালকে পেয়েছে। দেখা যাই যে ৫-৬ দিন হয়ে গেছে কিন্তু তাও অনেকের প্রোডাক্ট ডেলিভারি হয় না।

কুরিয়ারদের দায়িত্ব যে কাস্টমার যদি প্রোডাক্ট ডেলিভারি করতে দেরি হয় তাহলে তারা যাতে কাস্টমারদেরকে ফোন দিয়ে জানিয়ে রাখে কিন্তু তারা এই কাজটাও ঠিক মত করছেন যাতে করে আমাদের অর্ডার কেন্সেলের সম্মুখীন হতে হয়।

আমরা প্রাই তাদের বলে থাকি যে তারা যেন আমাদের এক্সচেঞ্জ প্রোডাক্ট বা কেন্সেল প্রোডাক্ট সাথে সাথে আমাদেরকে যাতে পাঠিয়ে দেওয়া হয় কিন্তু দেখা যাই এক মাসের আগের প্রোডাক্টও তারা এখনো রিটার্ন করে নি। এতে করে আমার আমাদের প্রোডাক্ট থাকা সত্ত্বেও ডেলিভারি দিতে পারি না।

তারা বেশ কিছু দিন যাবত আমাদের ঠিক মত পেমেন্ট স্টেটমেন্ট ও দিতে পারছে না। তো সেই কারণে আমরা বুজতেই পারি না কোন প্রোডাক্ট ডেলিভার হয়েছে আর কোনটি হয়নি।

সবচেয়ে উল্লেখ্য যেই বিষয়টা তারা আমাদের পেমেন্ট নিয়ে হইরানি করছে। আমরা যদি আমাদের টাকা পাওয়ার জন্য তাদের পিছনে ঘুরতে হয় তাহলে কোন প্রতিষ্ঠান ঠিক মত ব্যবসা করবে কিভাবে? তাদের কাছে পেমেন্ট চাইলে তারা আজকে দিবে কালকে দিবে করে ঘুরাতেই থাকে এমনকি আমি গত কয়েক সপ্তাহ ধরে তাদের পিছনে ঘুরছি। তাদের কাছে আমাদের টাকাটা হচ্ছে আমানত কিন্তু তারা এই আমানতের সম্পূর্ণ ভাবে খেয়ানত করছেন।

এই বিষয় নিয়ে আমি বিপ্লব ভাইয়ার সাথে গত কয়েক সপ্তাহ যাবত কথা বলতে চাচ্ছি, কিন্তু তিনি আমার ফোন পিক করেন না, তাকে ওয়েটিং এ পাওয়া যায় এবং তিনি কলও কেটে দেন। পরে উপায় না পেয়ে আমি অপরচিত নাম্বার থেকে কল দেই কিন্তু তখন তিনি ঠিকই পিক করেন এবং তাকে বিষয় গুলো খুলে বললে তিনি সবই বুঝলেন কিন্তু প্রতিফলনটা অনেকটা এরকম এক কান দিয়ে শুনলেন অন্যও কান দিয়ে বের করে দিলেন।

যাই হোক আমি ই-কুরিয়ারকে সম্পূর্ণ ভাবে বর্জন করছি আমাদের ডেলিভারি সার্ভিসের জন্য এবং ভুলেও এদের আসে পাশে নয়। যদি কোন দিন তারা প্রমাণ করতে পারে যে তারা প্রফেসনালিজম শিখছে, কমিউনিকেশন করতে শিখেছে এবং ব্যবসা করতে শিখেছে তাহলে আশা করি আবার ওনাদের সার্ভিস নিব তাঁর আগে নয়।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন