রিভিউস:
সেলফি ও ব্যাটারির দিক থেকে পারফেক্ট ‘হ্যালিও এস১০’

346
ছবি: মিরাজুল ইসলাম জীবন

শাহজালাল রোহান, টেকজুম ডটটিভি// দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারি ও সেলফি তোলার জন্য উপযুক্ত ফোন হ্যালিও এস১০। ফোনটি কম আলোতেও ঝকঝকে সেলফি তুলতে সক্ষম এবং এটিতে ৪ হাজার ১০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে। যেটি বাজারে উন্মুক্ত করেছে এডিসন গ্রুপ।  ফোনটি খুবই প্রিমিয়াম বিল্ট এবং স্লিম । এটির ব্যাকপার্ট তৈরিতে মেইন প্যানেল মেটাল ব্যবহার করা হয়েছে। যা সাধারণ প্লেনের বডি তৈরিতে ব্যবহৃত হয়।

অ্যান্ড্রয়েড নুগাট (৭.০) অপারেটিং সিস্টেমচালিত স্মার্টফোনটির আরো চমক হচ্ছে সামনেই রয়েছে ১৬ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা ও সেলফি ফ্ল্যাশ ফিচার।

ফোনটির আদ্যোপান্ত নিয়ে আজ কথা বলবো আমরা। টেকজুমের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো;

ছবি: টেকজুম ডটটিভি

ডিসপ্লে:
হ্যালিও এস১০ আছে ৫.৫ ইঞ্চি ফুল এইচডি আইপিএস ডিসপ্লে। এটিতে কর্নিং গরিলা গ্লাস ৩ ব্যবহার হয়েছে প্রটেকশনের জন্য । তাই স্ক্র‍্যাচ নিয়ে তেমন চিন্তা নেই তবুও এক্সট্রা গ্লাস প্রটেকশন লাগানো ভালো । তাছাড়া ২.৫ডি গ্লাসের ডিসপ্লেতে ভিউয়িং এংগেল নিয়ে কোনো সমস্যা দেখা যায়নি।

ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর:
হ্যালিও এস১০ এর বিশেষ ফিচার হচ্ছে এর ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর। এই সেন্সর দিয়ে মাত্র ০.২ সেকেন্ডেই আনলক করা যায়। কোনও প্রকাশ হ্যাচেল ছাড়াই আনলক হয়।

ডিজাইনঃ
হ্যালিও এস১০ খুবই স্লিম একটি স্মার্টফোন । ব্যাকপার্ট এর মেইন প্যানেল মেটাল যা সাধারণত উড়োজাহাজ তৈরীতে ব্যবহার করা হয়। ব্যাক ডিজাইনে নতুনত্ব দিয়েছে । বডি খুব শক্ত। আর সিম কার্ড স্লট হিসেবে আছে হাইব্রিড স্লট যাতে দুটি সিম অথবা, একটি সিম এবং একটি মেমরি কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন ।

হার্ডওয়্যারঃ
এটিতে মিডিয়াটেক এমটি৬৭৫৫ চিপ সেট ব্যবহৃত হয়েছে। যার প্রসেসর ক্লকস্পিড ১.৯৫ গিগাহার্জ। ফোনটিতে ৪ জিবি র‍্যাম রয়েছে। ডিভাইসটির রম থাকছে ৩২ জিবি যা এসডি কার্ড দিয়ে ২৫৬ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো সম্ভব। হার্ডওয়ারের দিক থেকে অনেকটা সন্তুষ্ট থাকা যেতে পারে ফোনটি নিয়ে।

ক্যামেরাঃ
রিয়ার ক্যমেরায় ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরায় বেশ ভালো ছবি ওঠে ডে লাইটে। যার রেজুলেশনও চমৎকার। ইমেজ শার্পনেস, কন্ট্র‍্যাস্ট নিয়ে কোনো অবজেকশন থাকবে না। তবে মজা পাবেন এর ফ্রন্ট ক্যামেরাতে । এর ১৬ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরাতে সামনে ফ্রন্ট ফ্ল্যাশ এ আছে ‘সেলফি ফ্ল্যাশ ল্যাম্প’ । রেগুলার ফ্ল্যাশ এর চাইতে এই সেলফি ফ্ল্যাশ ল্যাম্প অনেক বেশী পাওয়ারফুল। কারণ এর ফ্রন্ট ক্যামেরা বেশ ভালো পরিমানের ওয়াইড। খুব সহজেই সেলফি এবং গ্রুপ সেলফির জন্য মানিয়ে নেওয়া যায় ।

ব্যাটারিঃ
এটিতে ৪ হাজার ১০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি ইউজ হয়েছে। শুধু তাই নয় ব্যাটারির দিক থেকে কোন প্রকার অসন্তুষ্ট হতে হবে না গ্রাহককে। তাছাড়া এটি ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। চার্জে থাকা অবস্থায় কিছুটা গরম হলেও চিন্তার কোনও কারণ নেই। এটি একাধারে লং টাইম ভিডিও বা গেম খেলা যাবে অনায়াসে। যাতে গরমের কোন বালাই নেই। চেক করে দেখা গেছে বক্সের সাথে দেওয়া চার্জারে ২০% চার্জ থেকে একদম কারেক্ট ৩০ মিনিট সময়ে ৭০ পার্সেন্ট চার্জ হয়েছে । তাই ব্যাটারি ব্যাকাপ নিয়ে চিন্তার কিছু নেই ।

ফোনটি দুটি রঙে পাওয়া যাবে। কালো ও সোনালি রঙের ফোনটির মূল্য ১৯ হাজার ৯৯০ টাকা।

টেকজুম ডটটিভি/৮আগস্ট/ এসআর