নিজস্ব প্রতিবেদক, টেকজুম ডটটিভি// ইন্টারেনেট সংযুক্তদের ৪১ শতাংশই স্মার্ট ডিভাইস ব্যবহার করেন। এদের মধ্যে ম্যাক পিসি/ল্যাপটপ ব্যবহারকারীদের সংখ্যা ৬৮ শতাংশ। এদের অধিকাংশই ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে মূল্য পরিশোধ করে থাকে। আর অনলাইন কেনাকাটায় পেমেন্ট সেবা হিসেবে ব্যবহৃত হয় পেজা।

বোস্টন কনসাল্টিং গ্রুপের (বিসিজি) সেন্টার ফর কাস্টমার ইনসাইট প্রকাশিত বাংলাদেশ: দ্য সার্জিং কনজ্যুমার মার্কেট নোবডি স’ কামিং শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর গুলশানে গার্ডেনিয়া গ্র্যান্ড হলে এক অনুষ্ঠানে এ প্রতিবেদনটি প্রকাশ করে বিসিজি। বিসিজি বিজনেস স্ট্র্যাটেজির ওপর বিশ্বের নেতৃস্থানীয় কনসালট্যান্সি ফার্ম।

বিসিজি’র সেন্টার ফর কাস্টমার ইনসাইট ২ হাজারের বেশি বাংলাদেশি ভোক্তার ওপর জরিপ করে এবং তাদের ভোগের ধরণ সংক্রান্ত তথ্য বিশ্লেষণ ও গবেষণা করে এ গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

ভোগ্যপণ্যের হিসেবে বাংলাদেশ বিশ্বের পরবর্তী উদীয়মান বাজার উল্লেখ করে প্রতিবেদেন আরও বলা হয়েছে- তরুণদরে হাত ধরেই দ্রুততার সঙ্গে সমৃদ্ধ বাংলাদেশের মোবাইল ইন্টারনটে প্রযুক্তি।

প্রতিবেদন মতে, বাংলাদেশ বিশ্বের অন্যতম দেশ যেখানে ব্যবসার সুযোগ ক্রমবর্ধমান হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। এখানে ভোক্তার সংখ্যাও বেড়ে যাচ্ছে সমানতালে। বাংলাদেশে প্রতিবছর ২০ লাখ মানুষ মধ্যম আয়ে উত্তীর্ণ হচ্ছে ও ধনী ভোক্তার সংখ্যা বাড়ছে। যারা ভবিষ্যতের ব্যাপারে খুবই আশাবাদী, বিদেশি ব্র্যান্ডকে মূল্য দেয় ও প্রযুক্তিগত সব সুবিধা পাওয়ার ব্যাপারে ইচ্ছুক।

গবেষণা প্রতিবেদনটি বাংলাদেশের মধ্য ও উচ্চবিত্তের ওপর পরিচালিত। বিসিজি’র তথ্য অনুযায়ী যাদের বার্ষিক পারিবারিক আয় ৫ হাজার বা তারও বেশি ইউএস ডলার তাদেরকেই মধ্য ও উচ্চবিত্ত হিসেবে ধরা হয়েছে। এর মাধ্যমে এ ভোক্তা শ্রেণির স্বাচ্ছন্দ্যপূর্ণ ও আরামদায়ক পণ্য ক্রয়ের সামর্থ রয়েছে বলে প্রতীয়মান হয় বলে প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে। পারিবারিক পণ্যের তালিকায়- শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্র, আমদানিকৃত শ্যাম্পু ও অন্যান্য প্রসাধন সামগ্রীর কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

বলা হয়েছে, যদিও বাংলাদেশের মোট ১৬ কোটি জনসংখ্যার শতকরা মাত্র ৭ ভাগ মানুষ উচ্চ ও মধ্যবিত্ত শ্রেণিতে বিদ্যমান। কিন্তু এক দশকের স্থিতিশীল অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির কারণে এ সংখ্যা প্রতিনিয়তই বাড়ছে। জনসংখ্যার মধ্যে কর্মজীবী মানুষের সংখ্যা বাড়ছে যা অর্থনীতিকে শক্তিশালী, ঊর্ধ্বমুখী ও গতিশীল করছে। ২০২৫ সালের মধ্যে বাংলাদেশের মধ্য ও উচ্চবিত্ত মানুষের সংখ্যা তিনগুণ হয়ে ৩৪ মিলিয়ন হবে।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন