ধীরে ধীরে এগিয়ে যেতে চায় ডিসিএল মোবাইল: তৌফিকুল ইসলাম (ভিডিও)

223

শাহজালাল রোহান, টেকজুম ডটটিভি// দেশিও ব্রান্ডের সর্ব প্রথম ডুয়েল ক্যামেরার ফোন উদ্বোধন করে ড্যাফোডিল কম্পিউটার্স লিমিটেড (ডিসিএল)। যার মডেল ‘এল২০’। এ মডেলটি যখন আমরা নিয়ে এসেছি তখন কারো হাতে ডুয়েল ক্যামেরার ফোন ছিল না’ এমন দাবি করছেন, ড্যাফোডিল কম্পিউটার লিমিটেডের (ডিসিএল) মোবাইল ফোন বিভাগের প্রধান মুহাম্মাদ তৌফিকুল ইসলাম।

সম্প্রতি রাজধানীর কলাবাগানে ড্যাফোডিল কম্পিউটার্স লিমিটেডের প্রধান কার্যালয়ে টেকজুমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, শুধু তাই নয় এখনো আমাদের কাছে ডিসিএল এল-৩০ নামের একটি শক্তিশালী ব্যাটারির ফ্লাগশিপ স্মার্টফোন আছে। এ ফোনটি পাওয়ার ব্যাংক হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। কারণ এটিতে রয়েছে ৬ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি। আর দেশের বাজারে এখনো এতো শক্তিশালি ব্যাটারির ফোন কারো কাছে নেই। এটি প্রায় ৩৬০ ঘণ্টা ধরে স্ট্যান্ডবাই মোডে চলতে সক্ষম। একবার চার্জেই টানা ১০ ঘণ্টা ভিডিও দেখা, ৪৫ ঘণ্টা গান শোনা ও ৪৬ ঘণ্টা কথা বলা যাবে।

গ্রাহকদের কাছে সাশ্রয়ী দামে মজবুত ও কোয়ালিটি মোবাইল পৌঁছে দিতে ডিসিএল কাজ করছে জানিয়ে তৌফিকুল ইসলাম বলেন, ২০১৭ সালটি মোবাইল মার্কেটে একটু অস্থিরতার ভিতরে চলছে। এটা সবার জানা। এখন আমাদের টার্গেট কি? এ মুহুর্তে আমরা ভাবছি না সিম্ফনি, ওয়ালটনসহ অন্যান্য ব্র্যান্ড কি করছে। কারণ তারা বিগ দেশীয় জায়ান্ট। আমরা ধীরে ধীরে চেষ্টা করবো আমরা কতটুকু মার্কেট শেয়ার নিতে পারি। এক কথায় বলতে পারেন ধীরে ধীরে এগিয়ে যেতে চায় ডিসিএল মোবাইল।

কাস্টমারাই ডিসিএল এল ব্র্যান্ডিং করবে জানিয়ে তিনি বলেন, ভালো একটি প্রডাক্ট দিয়ে কিভাবে কাস্টমারের কাছে যেতে পারি এ স্বপ্ন দেখছে ডিসিএল। কাস্টমাররা প্রডাক্ট ব্যবহার করে বরবে এটা ভালো। তারাই মাউথ পিয়ারের মতো কাজ করে।

সাক্ষাৎকারটি ভিডিও ধারণ করেছে মিরাজুল ইসলাম জীবন

একান্ত আলাপচারিতায় ডিসিএল মোবাইল ব্যবসার শুরু, কিভাবে মার্কেট শেয়ার ধরা যায়, কতোটা কোয়ালিটি মেইনটেইন করে, কয়টি মডেল আছে মার্কেটে এবং চ্যালেঞ্জ, বর্তমান অবস্থা ও ভবিষ্যত পরিকল্পনা সম্পর্কে অকপটে বলেছেন টেকজুম ডটটিভিকে।

এক নজরে ডিসিএল মোবাইল:
২০১৬ সালের মে থেকে লি-ফোন বাজারে ছাড়ার মধ্যে দিয়ে আত্মপ্রকাশ করে ডিসিএল। তখন আমরা মূলত দুটি প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করছিলাম। একটা হলো ইন্টারন্যাশনাল ব্র্যান্ড লি-ফোন, অন্যটা ডিসিএল মোবাইল। লি-ফোনের ফিচার ও স্মার্টফোন দু’টাই আছে। কিছুদিন মার্কেটে ব্যবসা করার পরে দেশীয় ব্র্যান্ডের পণ্য তৈরির টার্গেট নিয়ে প্রযুক্তিপণ্য ব্যবসা শুরু করে ড্যাফোডিল গ্রুপ। এখন অনেকগুলো ফিচার ও স্মার্টফোন বাজারে আছে। খুব শক্তিশালী ও মজবুত ব্যাটারির ফোন রয়েছে বাজারে। ডিসিএল-এর ৯ টি মডেলের ফিচার ও স্মার্টফোন বাজারে রয়েছে।

তৌফিকুল ইসলামের কর্মময় জীবন:
২০০৮ সালে বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং শেষে এলজি মোবাইল কোম্পানিতে যোগ দেন তিনি। এর পরে শীর্ষস্থানীয় ব্র্যান্ড জিওনি, স্প্রিন্ট, আই মোবাইল, মালাটা, কল-মি, সিসিআইটি, লেমনসহ কয়েকটি চায়নিজ ব্র্যান্ডের মোবাইল কোম্পানিতে কাজ করেন। পরবর্তীতে ২০১৫ সালের ০১ নভেম্বর ড্যাফোডিল কম্পিউটার্স লিমিটেড (ডিসিএল) হ্যান্ডসেট ব্র্যান্ডের মোবাইল বিভাগের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

 

টেকজুম ডটটিভি/১আগস্ট/এসআর/এমআইজে