নিউজ ডেস্ক, টেকজুম ডটটিভি// জঙ্গিরা অনলাইন ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে ব্যবহার করে নতুনভাবে সংগঠিত হচ্ছে। এ তৎপরতা চালানো হচ্ছে বিদেশের মাটি থেকে। নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা মনে করছে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সাইবার জগতের এ ধরণের কর্মকাণ্ড বন্ধে পুরোপুরি সক্ষম নয়।

গোয়েন্দা সংস্থা এ বছরই নতুন তিনটি জঙ্গি সংগঠনের অস্তিত্বের কথা জানতে পারে। যাদের তৎপরতা শুধু অনলাইন আর নানা সমাজিক মাধ্যমে সীমিত। এরা দলীয় কর্মকান্ড থেকে শুরু করে প্রয়োজনে হত্যাকান্ডের মতো নৃশংসতা চালায় ইন্টারনেট ব্যবহার করে। নিরাপত্তা বিশ্লেষকদের মতে, জামা’আতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ, হিযবুত তাহরীর ও আনসারুল্লাহ বাংলাটিমসহ নিষিদ্ধ ছয়টি সংগঠনের জঙ্গিরা এখন নতুনভাবে সংগঠিত হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। গত ৪ঠা সেপ্টেম্বর হিযবুত তাহারির অনলাইন সম্মেলনের আয়োজন করায় টনক নড়ে প্রশাসনের।

গোয়েন্দা সংস্থাগুলো বলছে, মূল তৎপরতা দেশের বাইরে হওয়ায়, কাউকে আটক করা সম্ভব হচ্ছেনা। নিরাপত্তা বিশ্লেষকদের মতে, সাম্প্রতিক সময়ে ছয়জন লেখক ও অনলাইন একটিভিস্টকে হত্যার পরিকল্পনা ও নির্দেশনা এসেছে অনলাইনে। এসব হত্যাকান্ডের পাশাপাশি ইসলামিক স্টেটের পক্ষে কর্মী সংগ্রহেও তারা কাজ করছে বলেও অভিযোগ উঠেছে। সাইবার জগতের এ ধরণের তৎপরতা প্রতিরোধে দেশের গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর সক্ষমতার ঘাটতি আছে বলেও মনে করছেন নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা। বিশ্লেষকরা বলছে, সরকার কিছু জঙ্গি সংগঠন নিষিদ্ধ ও তাদের তৎপরতার ওপর নজরদারি বাড়ানোর ফলে তারা নিত্য নতুন কৌশল নিয়ে এগুচ্ছে। এসব কাজে অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক মদত ও আর্থিক সহয়তারও অভিযোগ আছে।

সুত্র: Independent24 Television

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন