দেশে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার সাধারণের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ইন্টারন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়নের (আইটিইউ) পক্ষ থেকে দেওয়া আইসিটি সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করলেন তিনি। আর পুরস্কার হাতে নিয়ে তা উৎসর্গ করলেন দেশের তরুণ শ্রেণীকে।

নিউইয়র্কে স্থানীয় সময় শনিবার সন্ধ্যায় আইটিইউ’র মহাসচিব হুলিন ঝাও এই পুরস্কার তুলে দেন শেখ হাসিনার হাতে। জাতিসংঘ সদর দফতরে পুরস্কারজয়ীদের সম্মানে আয়োজন করা হয় বিশেষ নৈশভোজেরও।

জাতিসংঘে নতুনভাবে গৃহীত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনকে তরান্বিত করতে যাদের কার্যক্রম পাথেয় হয়ে থাকবে তাদেরই পুরস্কৃত করলো আইটিইউ। বিশ্বের আরো কয়েকটি দেশের রাষ্ট্র বা সরকার প্রধান, জাতিসংঘের বর্তমান ও অতীতের নেতৃত্বরা রয়েছেন এই তালিকায়।

1195999

পুরস্কার গ্রহণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার অব্যাহত প্রচেষ্টার পথে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি।

আইটিইউকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘পুরস্কৃত হয়ে আমি গভীরভাবে সম্মানিত বোধ করছি।’

বাংলাদেশের যুব শ্রেণিকে এই পুরস্কার উৎসর্গ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকার দেশের প্রতিটি নাগরিকের কাছে তথ্য প্রযুক্তির সেবা পৌঁছে দিতে কাজ করছে, যাতে কেউ একজনও পিছিয়ে না থাকে। একটি টেকসই উন্নত ভবিষ্যত বিনির্মাণে সবাইকে হাতে হাত ধরে কাজ করে যাওয়ার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

আইটিইউ’র ১৫০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এবছরই প্রথম আইসিটি অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হলো। বিশ্বের আরও কয়েকজন রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানের সঙ্গে এই অ্যাওয়ার্ড পান প্রধানমন্ত্রী। টেকসই উন্নয়নে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারে দক্ষতা ও পারঙ্গমতার জন্যই এই পুরস্কার দেওয়া হয়। আইসিটি খাতে সফলতার গল্প, আর সাম্প্রতিক বছরগুলোতে আইসিটি খাতে উন্নয়নের যারা স্বাক্ষর রাখতে পেরেছেন তাদের জন্যই এই পুরস্কার। টেকসই উন্নয়ন এজেন্ডার যে ১৭টি লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হচ্ছে তার বাস্তবায়নে আইসিটির গুরুত্ব মাথায় রেখেই এই পুরস্কার প্রণয়ন করেছে আইটিইউ।

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন