টেকজুম ডটটিভি/২৪আগস্ট/এসআর// ভেবে দেখুন তো, আপনি এমন এক অবস্থায় আছেন যেখান থেকে শুধুমাত্র জটিল সব ধাঁধার সমাধান করার মাধ্যমেই নিজেকে উদ্ধার করা সম্ভব। এমন অবস্থায় ভেবে দেখুন তো আপনি কাকে ডাকবেন সাহায্যের জন্য? যেকোনো বাঙালিকে প্রশ্নটি করুন, সবাই নিশ্চিতভাবে বলবে- ফেলুদা! কিংবদন্তী চলচিত্রকার ও ঔপন্যাসিক সত্যজিৎ রায়ের অমর সৃষ্টি গোয়েন্দা চরিত্র ফেলুদার প্রতি এমনই অগাধ আস্থা ও শ্রদ্ধা প্রতিটি বাঙালির।

এখন পর্যন্ত ফেলুদা নিয়ে ১৮টি ছোট গল্প ও ১৭টি উপন্যাস লিখেছেন সত্যজিৎ রায়। এছাড়াও, ফেলুদা নিয়ে দু’টি চলচ্চিত্র সোনার কেল্লা (১৯৭৪) ও জয় বাবা ফেলুনাথ (১৯৭৯) নির্মাণ করেছেন তিনি।

এছাড়াও, সত্যজিৎ রায়ের ছেলে সন্দীপ রায় ফেলুদার রোমা কর কাহিনি নিয়ে পাঁচটি চলচ্চিত্র ও ১০টি টেলিভিশন চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন। ফেলুদার গল্প নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন নাটকে ফেলুদা চরিত্রে প্রতিভাবান সব শিল্পীরা অভিনয় করেছেন। কিন্তু পর্দায় সবচেয়ে সফলভাবে ফেলুদাকে ফুটিয়ে তুলেছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ও সব্যসাচী চক্রবর্তী।

ফেলুদার ক্লাসিক কিংবা টেলিভিশন থেকে বেরিয়ে সত্যজিৎ রায়ের কিংবদন্তী চরিত্র প্রদোষ চন্দ্র মিত্র বা ফেলুদা নতুন রূপে আরও রোমা কর অ্যাডভে ার নিয়ে আসছে আমাদের কাছে। যেখানে ফেলুদা চরিত্রে অভিনয় করবেন জনপ্রিয় তারকা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় আর তোপসে চরিত্রে অভিনয় করবেন ঋদ্ধি সেন। এবার বাংলাদেশে জটিল সব রহস্যের সমাধান করবে ফেলুদা।

আসছে ঈদে ফেলুদা ভক্তদের জন্য গ্রামীণফোনের ভিডিও স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম বায়োস্কোপ নিয়ে এসেছে ফেলুদার নতুন এ ওয়েব সিরিজ। এ ব্যাপারে গত ২২ আগস্ট গ্রামীণফোনের প্রধান কার্যালয় জিপি হাউজে ক্যান্ডি প্রোডাকশন লিমিটেড এবং বঙ্গ-স্টেলার ডিজিটাল লিমিটেডের মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। ক্যান্ডি প্রডাকশন লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহরিয়াল শাকিল ও বঙ্গ-স্টেলার ডিজিটাল লিমিটেডের হেড অব কনটেন্ট কারেল কুপারি নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে সাক্ষর করেন। চুক্তিস্বাক্ষর অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন গ্রামীণফোনের বায়োস্কোপের প্রোডাক্ট ম্যানেজার রাফায়েল মাহবুব এবং ক্যান্ডি প্রডাকশনের মিডিয়া ম্যানেজার শিকদার ওয়াহিদুজ্জামান।

এ নিয়ে গ্রামীণফোনের হেড অফ ডিজিটাল এন্টারটেইনমেন্ট মোহাম্মদ মুনতাসির হোসেন বলেন, ‘ফেলুদা নিঃসন্দেহে সবচেয়ে প্রতিভাবান বাঙালি চরিত্রগুলোর মধ্যে অন্যতম। এমন কোন শিক্ষিত বাঙালি পাওয়া বিরল যে কখনও ফেলুদার নাম শোনেনি কিংবা এমন কোন বইপ্রেমীর খুজে পাওয়া যে অন্তত কিংবদন্তী এ গোয়েন্দার একটি গল্পও পড়েনি। আমি ব্যক্তিগতভাবে ফেলুদা চরিত্র এবং ফেলুদার নির্মাতা সত্যজিৎ রায়ের বিশাল বড় ভক্ত। এবার আমরা ফেলুদাকে দেখব বাংলাদেশে নানা সমস্যার সমাধান করতে। বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের প্রতিভাবান সব অভিনেতারা অভিনয় করছেন ফেলুদার নতুন সিরিজে। পাশাপাশি, ফেলুদার গল্পকে অডিও-ভিজ্যুয়াল মাধ্যমে দর্শককে অভুতপূর্ব এক অভিজ্ঞতা দিতে কাজ এর পেছনে কাজ করছে সব দক্ষ ফেলুদা ভক্তরা।’

ফেলুদা ভক্তদের জন্য বায়োস্কোপের এক্সক্লুসিভ কনটেন্ট হিসেবে বাংলাদেশে নির্মিতব্য ফেলুদা সিরিজে থাকছে চারটি পর্ব। বায়োস্কোপ লাইভ টিভি অ্যাপটি প্লে-স্টোর থেকে ডাউনলোড করে মোবাইল ফোনের পর্দাতেও ফেলুদা ভক্তরা ফেলুদা সিরিজ দেখতে পারবেন।

এছাড়াও, বায়োস্কোপের ওয়েবসাইটেও (www.bioscopelive.com) সবগুলো পর্ব দেখা যাবে। তাই এখনই প্রস্তুত হয়ে যান রোমাঞ্চকর, রহস্য ও নাটকীয়তায় ভরা এ গোয়েন্দা সিরিজ দেখার জন্য।

টেকজুম ডটটিভি/২৪আগস্ট/এসআর

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন