‘মোবাইল বাজারে বাজেটের প্রভাব’

তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিবেদক: আগামি ২০১৭-১৮ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেটে মোবাইল সেট আমদানিতে ১৫ শতাংশ মূল্য সংযোজন কর (মূসক) আরোপের প্রস্তাব করেছে সরকার। বিদেশি এসব সেট আমদানিতে কর বেড়ে গেলে বাজারে এর দাম বাড়বে বলে সবাই আশঙ্কা প্রকাশ করছে। তবে ইতিমধ্যে মোবাইল বাজারে বাজেটের প্রভাব পড়েছে। অন্যন্য বারের মতো রমযান ও আসন্ন ঈদে যে ক্রেতা সমাগম হয় তার তুলনায় এবার খুব কম। এ নিয়ে বিক্রেতাদের মধ্যে এক ধরনের ক্ষোভ লক্ষ্য করা গেছে।

বৃহস্পতিবার (৮ জুন) রাজধানীর বসুন্ধরাসিটিসহ অন্যন্য অভিযাত মলগুলো ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে।

রাজধানীর বসুন্ধরা সিটির সিম্ফনি বিক্রেতা মোঃ ইসমাইল বলেন,‌‌ ‌‌‌‌‌‌‌‌‌কি আর বলবো দেখেতই পারছেন কাস্টমার বিহীন বসে আছি। বিক্রির অবস্থা খুবই খারাপ। যত দিন আগাচ্ছে সে তুলনাই বিক্রি বাড়ছে না। সবার ভিতরে এক অজানা আতঙ্ক মনে হয় দাম বেড়ে গেছে।  আসলে  মোবাইলের দাম এখনো বাড়েনি। তবে বাড়বে।’

 

এ বিক্রেতা আরো বলেন, এ পরিস্থিতি দেখে মনে হয় বাজেটের প্রভাব পড়েছে মোবাইল বাজারে। শুধু আমাদের না, স্যামসাং, হুয়াওয়ে, অপ্পো, ওয়ালটনসহ সবারই একই অবস্থা। বিক্রি কম। এভাবে  চললে ঠিক মতো স্টাফ বেতন দিতে পারবো কিনা জানিনা।’

 

স্যামসাংয়ের এক্সপেরিয়েন্স কনসালটেন্ট মিনহাজুর রহামান টেকজুমকে বলেন, যদি এভারেজ সেলের  কথা বলেন তবে ভালোই হচ্ছে। তবে গত বছরের তুলনায় এবছর মোবাইলফোন বিক্রি হচ্ছে খুবই কম। জানিনা এটা কেন। এভাবে চললে আমাদের এ বছরের টার্গেট  অর্জিত হবে না।

সদ্য বাজারে বিক্রি শুরু করেছে নোকিয়ার স্মার্টফোন । বাজারে আসা ফোনগুলো বিক্রি মোটামুটি ভালোই হচেছ বলে টেকজুমকে জানান বসুন্ধরার নকিয়ার ব্যান্ড প্রমোটার রাসেল। এখন বাজারে নকিয়ার প্রথম সেগমেন্টর দুটি ফনে এসেছে। একটি নকয়িা ৩৩১০ অন্যটি নকিয়া ৩। তবে বিক্রি মোটামুটি ভালো।

 

এদিকে মোবাইল হ্যান্ডসেট আমদানিতে শুল্ক বাড়ানোর পদক্ষেপ সরকারের ডিজিটাল কার্যক্রমের ওপর সরাসরি নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলে মনে করছে অ্যাসোসিয়েশন অব মোবাইল টেলিকম অপারেটরস অব বাংলাদেশের (অ্যামটব)।

এ সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক টিআইএম নূরুল কবীর বলনে, এ কর নীতি ডিজিটাইজেশনের পথকে আরও কঠিন করে দেবে ।

টেকজুম ডট টিভি/ ৮জুন/এসআর/এমআইজে